স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকাকালীন এক শিক্ষিকার জায়গায় অন্য এক শিক্ষককে নিয়োগ করায় কলকাতা হাইকোর্টে তীব্র ভর্ৎসনার মুখে পড়তে হল স্কুল সার্ভিস কমিশন ও মধ্যশিক্ষা পর্ষদকে৷ মামলাকারী শিক্ষিকার মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষ না হওয়া পর্যন্ত স্কুল কাউকে নিয়োগ করতে পারবে না বলে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট৷

বাঁকুড়া জেলার সোনাখালী হাইস্কুলের নবম ও দশম শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষিকা অপর্ণা সেন৷ উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষকতা করবেন বলে ২০১৬ সালে এসএলএসটি পরীক্ষা দেন এবং তাতে উত্তীর্ণ লাভ করেন। ৩১ জুলাই এসএসসি অপর্ণা দেবীকে জানান তাঁকে বাঁকুড়া রামসাগর হাইস্কুলে পাঠানো হবে। আবার ওয়েস্ট বেঙ্গল সেকেন্ডারি এডুকেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয় ৩১ জুলাই নয় ১০ সেপ্টেম্বর তাঁকে স্কুলের দায়িত্ব নিতে হবে।

তখন অপর্ণা দেবী এসএসসি এবং ওয়েস্ট বেঙ্গল সেকেন্ডারি এডুকেশনকে চিঠি দিয়ে জানান তাঁর পক্ষে এই মুর্হূতে স্কুলে যোগ দেওয়া সম্ভব নয়৷ মাতৃত্বকালিন ছুটি কাটিয়ে স্কুলের দায়িত্ব নেবেন। অভিযোগ, অপর্ণাদেবীকে কিছু না জানিয়ে কর্তৃপক্ষ তাঁর জায়গাতে অন্য শিক্ষক নিয়োগ করে নেয়। বিষয়টি জানতে পারার পরই অপর্ণা দেবী হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন।

বুধবার মামলা চলাকালীন মামলাকারী অপর্ণাদেবীর আইনজীবী আশীষ কুমার চৌধুরী আদালতকে অভিযোগ করে জানান, তাঁর মক্কেলকে না জানিয়েই এসএসসি এবং ওয়েস্ট বেঙ্গল সেকেন্ডারি এডুকেশন একতরফা সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অপর্ণাদেবী মাতৃকালীন ছুটিতে আছেন। ছুটি শেষ হলে তিনি নতুন স্কুলের দ্বায়িত্ব নেবেন। এটা জানার পরে কেন সেটা কর্তৃপক্ষ বিবেচনা করল না সেই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

এরপর বিচারপতি শেখর ববি সারফ নির্দেশ দেন যত দিন না পর্যন্ত অপর্ণা সেনের মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষ হচ্ছে তত দিন ওই স্কুলে বিজ্ঞান বিষয়ে কাউকেই নিয়োগ করা যাবে না।অপর্ণাদেবী ছুটি শেষ করে নতুন স্কুলের দায়িত্ব নেবেন। এর মাঝে এসএসসি এবং ওয়েস্ট বেঙ্গল সেকেন্ডারি এডুকেশন নতুন করে নিয়োগ পত্র তুলে দেবেন তার হাতে।