কলকাতা: একে করোনায় রক্ষে নেই, আমফান দোসর। সাইক্লোন আমফানে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের দুর্দশার ছবি চোখে জল এনে দেওয়ার জোগাড়। কলকাতা সহ জেলার বিভিন্ন অংশে এখনও স্বাভাবিক হয়নি বিদ্যুৎ পরিষেবা। জলের দাবিতে পথে নেমেছেন স্থানীয় মানুষ। মুখ্যমন্ত্রীর তলবে শনিবার বিকেলে কলকাতার রাস্তায় নেমেছে সেনা। চলছে তিলোত্তমার বিভিন্ন জায়গায় উপড়ে যাওয়া গাছ সরানোর কাজ। এহেন জাতীয় বিপর্যয় থেকে বাদ যায়নি কলকাতা ময়দানও।

আমফানের তান্ডবে কমবেশি ক্ষতিগ্রস্থ মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গল থেকে শুরু করে ময়দানের প্রায় সমস্ত ক্লাব তাঁবু। বিভিন্ন জায়গায় গাছ পড়ে কিংবা বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়ে ময়দান কার্যত স্তব্ধ। আমফানে ক্ষতিগ্রস্থ ক্রিকেটের স্বর্গোদ্যান ইডেন গার্ডেন্সও। স্টেডিয়ামের ‘ডি’ ব্লকের ম্যানুয়াল স্কোরবোর্ড আমফানের দাপটে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ক্ষতি হয়েছে ইডেনের ইলেকট্রনিক স্কোরবোর্ডেরও। তবে চুপচাপ বসে নেই সিএবি। শীঘ্রই ইঞ্জিনিয়ার ডেকে ক্ষতিগ্রস্থ জায়গা মেরামতের কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সভাপতি অভিষেক ডালমিয়া। দিন পনেরোর মধ্যে ইডেনকে তার পুরোনো অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন অভিষেক।

দ্য টেলিগ্রাফকে সিএবি সভাপতি জানিয়েছেন, ‘প্রাকৃতিক একটা বিপর্যয় এসেছে। ক্ষয়ক্ষতি হওয়াটা স্বাভাবিক। তবে বিশাল কোনও ক্ষতির হাত থেকে বেঁচে গিয়েছে ইডেন।’ অভিষেক ডালমিয়া আরও জানিয়েছেন, ‘আমরা ইঞ্জিনিয়ারদের ডেকে ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে আলোচনা করব। তাদের থেকে আমরা যা নির্দেশ পাব সেই অনুযায়ীই কাজ শুরু হবে শীঘ্রই।’ কিছু ফাইবার শিট এবং শুকনো পাতা মাঠে উড়ে এসে পড়লেও আমফানে ইডেনের মাঠের কোনও ক্ষতি হয়নি বলেই জানিয়েছেন সিএবি সভাপতি।

ইডেনের তুলনায় আমফানে তুলনামূলক বেশি ক্ষতি হয়েছে কলকাতার আরেক গর্ব যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনের। যুবভারতীর প্রাকটিস গ্রাউন্ডের বাতিস্তম্ভ আমফানে উড়ে গিয়েছে। স্টেডিয়ামের দর্শকাসনের একাধিক ছাউনিও উড়ে গিয়ে সাইক্লোনে। যুবভারতীর একটি বাতিস্তম্ভের ক্ষতি হয়েছে ঝড়ে। আমফানে ভেঙেছে যুবভারতীর প্রেসবক্সের কাঁচ। প্রস্তুতি মাঠদু’টি দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ভেঙে পড়েছে স্টেডিয়াম ক্যাম্পাসের একাধিক গাছ।

শুক্রবারই আমফানের পর যুবভারতীর বেহাল দশা খতিয়ে দেখেছেন রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। দ্রুত মেরামতির কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে ভারতের মাটিতে বসবে মেয়েদের যুব বিশ্বকাপের আসর। তার আগে আমফান বিপর্যয়ে বেহাল যুবভারতী দ্রুত পুরোনো অবস্থায় ফিরবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন ক্রীড়ামন্ত্রী।