নয়াদিল্লি: এই মুহূর্তে এনআরসি,এনপিআর নিয়ে উত্তাল গোটা দেশ। প্রতিবাদের আগুন জ্বলেছে দেশের বিভিন্ন অংশে। কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছেন সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে শিক্ষিত বুদ্ধিজীবী সম্প্রদায়ের একাংশ। এই পরিস্থিতিতে বিখ্যাত লেখিকা তথা সমাজকর্মী অরুন্ধতী রায় এনপিআর নিয়ে প্রকাশ করলেন তাঁর নিজের মন্তব্য।

তিনি জানালেন, এনপিআরে কেউ যদি কোন ব্যাক্তির কাছ থেকে তাঁর ব্যাক্তিগত তথ্য চান সেক্ষেত্রে তিনি যেন সঠিক তথ্য না দেন। জানালেন কোন সরকারী কর্মী যদি এনপিআরের জন্য তথ্য নিতে আসেন তাহলে যেন সকলে ভুল তথ্য দেয়।

কোন কর্মী যদি এই আইনের জন্য নাম জিজ্ঞেস করে তাহলে যেন সকলে বলে রঙ্গা বিল্লা, কুংফু কাত্তা এই ধরণের অদ্ভুত বিদঘুটে নাম। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে হওয়া প্রতিবাদ সভা থেকে তিনি এই মন্তব্য করেছেন।

আরও পড়ুন- মেঘের আড়ালে দেখা যাচ্ছে সূর্যগ্রহণ, মহাজাগতিক দৃশ্যের সাক্ষী থাকছে কলকাতা

তিনি ওই প্রতিবাদ সভা থেকে আরও জানিয়েছেন সাধারণ মানুষ যেন ঠিকানা হিসেবে ৭ রেষ কোর্সের ঠিকানা দেন( যা আদপে প্রধানমন্ত্রীর ঠিকানা)। এছাড়াও জানিয়েছেন সকলেই যেন একই মোবাইল নম্বর দেন।

এই বিখ্যাত লেখিকা জানিয়েছেন নাগরিকত্ব আইন আমাদের দেশের মুসলিমদের বিরুদ্ধে করা হয়েছে। তাই যেন সকলেই মিলে যৌথভাবে এই আইনের প্রতিবাদ করেন।

অরুন্ধতী জানিয়েছেন, সরকারী কর্মীরা আপনাদের বাড়িতে আসবেন এবং আপনাদের প্রয়োজনীয় তথ্যাদি সংগ্রহ করবে। এছাড়াও বিভিন্ন ডকুমেন্ট যেমন আধার কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স দেখবেন। এই এনপিআর হল এনআরসির প্রাথমিক ধাপ। আমাদের সকলকে এই আইনের বিরুদ্ধে একযোগে লড়তে হবে। এই আইনের প্রতিবাদ করতে হবে। আর তাই সরকারী কর্মীরা এনপিআরের জন্য তথ্য চাইতে এলে ভুল তথ্য দেবেন।

রবিবার রামলীলা ময়দান থেকে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন তাঁর সরকার এনআরসি নিয়ে কোন কথা বলেইনি। যা মিথ্যে বলে জানিয়েছেন এই বিখ্যাত লেখিকা। এবং এও বলেছেন প্রধানমন্ত্রী সব জেনেই বলেছেন যাতে কেউ তাঁকে কোন প্রশ্ন করতে না পারে। বিরোধীরাও প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্যের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন।

এছাড়াও তিনি জানিয়েছেন, দেশ জুড়ে এই আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ শুরু হওয়াতে সরকার এনআরসি এবং সিএএ এই এনপিআরের মাধ্যমে লাগু করতে চাইছেন।

অরুন্ধতী জানিয়েছেন, এই আইন কেবলমাত্র মুসলিমদের বিরুদ্ধেই নয়। পাশাপাশি এই আইন দলিত, গরীব এবং আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষেরও বিরুদ্ধে। তাই একযোগে এই সিনের বিরুদ্ধে সকলকে রুখে দাঁড়াতে বলেছেন তিনি।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ