লখনউ: নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে উত্তাল গোটা দেশ। এই প্রতিবাদে পা মিলিয়েছে বিদ্বজ্জন থেকে শুরু করে ছাত্ররাও। তাঁরই মাঝে লখনউ এর প্রতিবাদীদের কাছে থেকে খাবার ও কম্বল কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠল সেখানকার পুলিশের বিরুদ্ধে।

জানা গিয়েছে, শুক্রবার লখনউয়ের ঘণ্টাঘরের কাছে প্রতিবাদ চলার সময়ে সেখান থেকে তাঁদের খাবার এবং শীতবস্ত্র কেড়ে নিয়ে যায় সেখানকার পুলিশেরা। শুধু তাই নয় রাতে বসার জন্য আনা প্লাস্টিক ও সরিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে পুলিশের বিরুদ্ধে।

যদিও লখনউ পুলিশের তরফ থেকে এই অভিযোগ মানা হয়নি। তবে পরোক্ষ ভাবে হলেও কম্বল সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি তারা মেনে নিয়েছেন।

শুক্রবার প্রায় পঞ্চাশজন মহিলা ঘণ্টাঘরের কাছে প্রতিবাদ শুরু করেছিল। জানিয়েছিলেন তাদের এই প্রতিবাদ চলবে অনির্দিষ্ট কালের জন্য। তাতে পরে আরও কয়েকজন যোগ দিয়েছিলেন। তবে তারই মাঝে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিও তে দেখা গিয়েছে মহিলা প্রতিবাদীদের মধ্যে থেকে কয়েকজন ছুটে গিয়ে পুলিশকে জিজ্ঞেস করছেন কেন তারা এইরকম আচরন করছেন।

তবে পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে তারা কোনরকম অনুমতি ছাড়া প্রতিবাদ করছিলেন ওই মহিলারা। এছাড়া অনেকে সেখানে কম্বল বিতরণ করছিলেন। যার জেরে রীতিমত ভিড় হয়ে গিয়েছিল ওই এলাকাতে। তারা কেবল কম্বলগুলি সরিয়ে নেওয়ার জন্য এসেছিল।

এমনিতেই নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বিভিন্ন জায়গাতে পরিস্থিতি যথেষ্ট উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে। বেশ কয়েক জায়গাতে বন্ধ রাখা হয়েছিল ইন্টারনেট পরিষেবা। তারপরে আবারও এই ঘটনা ঘটাতে আবারও আলোচনার কেন্দ্রে লখনউ।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও