ছাতরা : নোট বন্দী, জিএসটি থেকে শুরু করে ব্যাঙ্ক কেলেঙ্কারী কাণ্ডে বিরোধীদের নিশানায় পড়তে হয়েছে প্রধানমন্ত্রীকে। প্রচারে বেরিয়ে এই ইস্যুসমুহকে তীরের ফলায় বেঁধে প্রচার মঞ্চ থেকে মোদীর দিকে তাক করতে ভুলছেন না কোন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বই। দেশের অর্থনীতির গায়ে আঘাতের ওপর মলম লাগাতে তাই মরিয়া বিজেপি নেতৃত্ব। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংও এগিয়ে এলেন সেই ক্ষতয় প্রলেপ লাগাতে। ঝাড়খণ্ডের ছাতরায় প্রচারে বেরিয়ে এক র‍্যালীতে তিনি বলেন, ” ২০৩০ কিংবা ২০৩১ এর মধ্যে ভারত তিন সেরা দেশেকে পিছনে ফেলে দেবে। “

অর্থনীতি এবং শক্তির দিক থেকে বিশ্বে শীর্ষে থাকা ৩ দেশের মধ্যে রয়েছে রাশিয়া, আমেরিকা, চিন। এদের পিছনে ফেলে এগিয়ে আসবে ভারত। দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। ” অর্থনীতির দিক দিয়ে বিচার করলে, ২০১৪ সালে বিশ্বের সেরা দশটি দেশের মধ্যে ৯ নম্বরে ছিলাম আমরা। কিন্তু নরেন্দ্র মোদীর সরকারের হাতে পরে সেই স্থান ৬ এ এসেছে। ” বলেন রাজনাথ।

” আমি আত্মবিশ্বাসের সাথে বলছি কিছু বছর নয়, কিছু মাসের মধ্যেই আমরা ৫ম স্থানে উঠে আসব। ”
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী আশ্বস্ত করেছেন, জনগনের প্রত্যেকটা পাই-পয়সা মানুষেরই ভালোর জন্য কাজে লাগাবেন তিনি, যা পৌঁছেও যাবে সাধারণ মানুষের কাছে। “

রাজীব গান্ধী খুব অসহায়তার সঙ্গে বলতেন, ” তাঁকে ১০০ পয়সা দিলে জনগনের কাছে ১৬ পয়সা পৌঁছবে। কিন্তু নরেন্দ্র মোদী সেই চিন্তাধারায় বদল এনেছেন, তিনি ১০০ পয়সা নিলে ১০০ পয়সাই জনগণকে ফেরত দেন। ” ” দেশের মোট ১২৬ টি জেলায় মাথা চারা দিয়েছিল নকশালবাদ কিন্তু এখন তা এসে ঠেকেছে ৭ কি ৮ এ। আমি আপনাদের আশ্বস্ত করছি, আগামী চার বছরে তা পুরদস্তুর নির্মূল হয়ে যাবে। “

ঝাড়খণ্ডে রয়েছে মোট ১৪ টি লোকসভা কেন্দ্র। ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে ২৯ এপ্রিল, ৬ মে, ১২ মে এবং ২৯ মে।