ঢাকা: ছবিটা কে তুলেছেন তা জানা যায়নি৷ তবে যিনিই তুলেছেন তাঁর তো বটেই খোদ নড়াইল এক্সপ্রেস তথা আন্তর্জাতিক স্টার ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মোর্তাজার নতুন জীবনে এই ছবি সর্বাপেক্ষা মূল্যবান বলেই বিবেচিত হবে৷ রাজপথে তিনি ভোট প্রচারে আর ভিড়ে ঠাসা বাস থেকে হাত মেলাচ্ছেন যাত্রীরা৷ সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের সবথেকে আলোচিত ছবির একটি হয়েই থেকে গেল৷

ক্রিকেট জীবনকে এখনও পুরোপুরি বাইবাই বলেননি মাশরাফি বিন মোর্তাজা৷ তবে আসন্ন বিশ্বকাপের আগেই তিনি খেলার দুনিয়া থেকে খানিকটা সরে এসে নির্বাচনে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন৷ প্রার্থী হয়েছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের৷ তাঁর কেন্দ্র নড়াইল-২ সংসদীয় আসন৷ নির্বাচনে তিনি দাঁড়ানোর ইচ্ছে প্রকাশ করতেই বাংলাদেশ জুড়ে আলোড়ন ছড়িয়েছিল৷


পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন মাশরাফি৷ এরপরেই তাঁকে দলের প্রার্থী হিসেবে সম্মতি দিয়ে দেন হাসিনা৷ এরপরই নড়াইলবাসীর বিপুল সমর্থনের ঢেউ ঘিরে ধরে মাশরাফিকে৷ এদিকে বাংলাদেশ জাতীয় ওয়ান-ডে অধিনায়ক জানিয়েছেন, মনোনয়ন দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ। আমি রাজনৈতিক কথা বলতে আসিনি। প্রতিহিংসাপরায়ণতা নয়, দলমত–নির্বিশেষে সবাই আমাকে ভোট দেবেন। সবাই মিলে আমরা সমৃদ্ধ নড়াইল গড়ব।

আরও পড়ুন: পদ্মাপারে ভোট: শেখের বেটি হাসিনাকেই পছন্দ লুপ্ত ছিটমহলবাসীর

নড়াইল-২ আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মাশরাফির প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির এ জেড এম ফরিদ্দুজামান৷ তবে বিএনপির প্রচারে তেমন সাড়া নেই৷ সব ঝলক শুষে নিয়েছেন মাশরাফি৷ ফলে নির্বাচনের আগেই এই কেন্দ্রে পরাজয় নিশ্চিত সেটা যেন ধরেই নিয়েছে বিএনপি৷ অন্যদিকে প্রচারে ঢেউ তুলে ছুটছেন মাশরাফি সঙ্গে তাঁর স্ত্রী সুমনা হক সুমি৷ তিনিও স্বামীর হয়ে ভোট চাইছেন৷

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের দলে মাশরাফি বিন মোর্তাজার ভূমিকা স্মরণীয় হয়ে থাকবে৷ সর্বশেষ এশিয়া কাপে বাংলাদেশের অধিনায়ক ছিলেন৷ ফাইনালে দেশকে তুলে ভারতের কাছে হার মানতে হয়৷ জাতীয় ওয়ান ডে দলের অধিনায়ক হিসেবে দেশকে ক্রিকেট ময়দানে রক্ষা করতে ভূমিকা নিয়েছেন৷ এবার নতুন ইনিংস শুরুর অপেক্ষায়৷ ভোট বাক্সে জমা হবে সেই উত্তর৷