স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: আইনকে বুড়ো আঙুল৷ দিনের আলোয় জলা জমি ভরাট চলছে রমরমিয়ে৷ নেপথ্যে শাসক দলের প্রাক্তন বিধায়ক৷ বেআইনী কাজে বাধা দিয়ে বর্তমানে নেতার রোষে পড়েছেন স্থানীয় ব্যসায়ী৷ ক্রমাগত আসছে প্রাণনাশের হুমকি৷ পুলিশ নির্বিকার৷ অভিযোগ ব্যবসায়ীর৷ ঘটনা মালদহের গাজোলের৷

মালদহ বাস স্ট্যান্ড এলাকায় থাকেন ব্যবসায়ী৷ তাঁর বাড়ির পিছনেই রয়েছে পকুর৷ অভিযোগ ওই পুকুরই ভরাটের কাজ চলছে জোর কদমে৷ প্রতিবাদ করেন ব্যবসায়ী৷ প্রশাসনকে জানিয়ে কাজের কাজ হয়নি৷ কিন্তু, তারপর থেকেই তাঁর কাছে ক্রমাগত আসছে হুমকি ফোন৷ বেআইনী কাজে বাধা দিয়েও হুমকি ফোন? তাজ্জব ঘটনা৷

হুমকি এসএমএস ও ফোন দেখে পরিস্কার হয় চিত্র৷ বেআইনী এই কারবারের পিছনে জড়িয়ে রয়েছে গাজোলের প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক সুশীল রায়ের নাম৷ প্রথমে দেখে বিশ্বাস হয়নি৷ পরে অবশ্য ঘোর কাটে দিন তিনেক আগে সরাসরি সুশীলবাবুর ফোন পেয়ে৷ ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, ফোন করে এসএমএস করে প্রাণনাশের হুমকি দেয় সুশীল রায় ও তার ছোট ছেলে ছোটন রায়। তাদের প্রশ্ন কেন ব্যবসায়ী অভিযোগ জানাচ্ছেন পুকুর ভরাট নিয়ে৷

সম্পূর্ণ ঘটনা গাজোল থানায় লিখিতবাবে জানান ব্যবসায়ী৷ কিন্তু আসলে যে তা অরণ্যে রোদন এখন মালুম হচ্ছে ব্যবসায়ীর৷ প্রাণনাশের হুমকি সত্ত্বেও কোনও পদক্ষেপ নেই তাদের৷ ভয়ে বাড়ি ছাড়া ব্যবসায়ী৷ এদিকে, এলাকায় বুক ফুলিয়ে ঘুরছেন প্রাক্তন বিধায়ক ও তার ছেলে৷ শাসক দলের লোক বলে কথা!

এই নিয়ে অভিযুক্ত প্রাক্তন বিধায়ক সুশীল রায়কে প্রশ্ন করা হলে, বিষয়টিকে তিনি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেন৷ অভিযোগের পিছনে ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে দাবি তার৷