মেলবোর্ন: ক্রিকেট উপলক্ষ্য মাত্র, উদ্যোগটা মহৎ। বিগত কয়েকমাস ধরে অস্ট্রেলিয়ায় দাবানলের কড়াল গ্রাসে নিশ্চিহ্ন হয়েছে কয়েক লক্ষ বন্যপ্রাণ, ক্ষতিগ্রস্থ সাধারণ মানুষ। আশ্রয়হীন বহু। প্রাকৃতিক দুর্যোগে বিপর্যস্ত অস্ট্রেলিয়ার সাহায্যার্থে মেলবোর্নের জাংশন ওভালে রবিবার অনুষ্ঠিত হয়ে গেল রাজকীয় ক্রিকেট ম্যাচ। মুখোমুখি হয়েছিল পন্টিং একাদশ বনাম গিলক্রিস্ট একাদশ।

ব্রায়ান লারা, ম্যাথু হেডেন, যুবরাজ সিং, অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস, কোর্টনি ওয়ালশ, ওয়াসিম আক্রম, এলিস ভিলানি। মেলবোর্নে এদিন চাঁদের হাটে সামিল ছিলেন আরও অনেক নক্ষত্র। বুশফায়ার ক্রিকেট ব্যাশ চ্যারিটি ফান্ডে উঠল ৭.৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা দান করা হবে অস্ট্রেলিয়ার বিপর্যয় মোকাবিলার তহবিলে। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে গিলক্রিস্ট একাদশকে ১ রানে হারাল পন্টিংয়ের দল। প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ১০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১০৪ রান তোলে পন্টিং একাদশ। ১৪ বলে ২৬ রানে ইনিংস খেলেন অধিনায়ক স্বয়ং। চোখধাঁধানো ৩০ রানের ইনিংস আসে ব্রায়ান লারার ব্যাট থেকে। খেলা ছেড়েছেন বহুদিন আগে। তবু ত্রিনিদাদের রাজপুত্রের ব্যাটে এখনও আগের মতোই ধার।

ম্যাচের বিরতিতে এক বিরল ঘটনার সাক্ষী থাকল জাংশন ওভালে উপস্থিত ক্রিকেট অনুরাগীরা। উল্লেখ্য, জাংশন ওভালেই এদিন মহিলাদের ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজে মুখোমুখি হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড। সেই ম্যাচ খেলে চ্যারিটি ম্যাচের বিরতিতে সচিনকে বল করতে মাঠে নেমে পড়েন অজি অল-রাউন্ডার এলিস পেরি। পেরির চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে দীর্ঘ সাড়ে ৫ বছর পর ব্যাট হাতে বাইশ গজে ব্যাটিং গ্রেট সচিন তেন্ডুলকর। পেরি ও সাদারল্যান্ডের মোট ৬টি বল ফেস করলেন মাস্টার-ব্লাস্টার। প্রথম বলে হাঁকালেন বাউন্ডারিও। শব্দব্রহ্মে ফেটে পড়ল জাংশন ওভালের গ্যালারি।

ব্যাটিং সেরে উঠে সচিন মজার ছলে জানালেন, ‘গতকাল আমি বল চোখে দেখতে পাচ্ছিলাম না। যাক আজ অন্তত বলটা দেখতে পেয়েছি। তবে হিট করা নিয়ে ধন্দে ছিলাম।’ উল্লেখ্য, চ্যারিটি ম্যাচে পন্টিং একাদশের কোচ হিসেবে নিযুক্ত হয়েছিলেন সচিন। কিন্তু গতকাল অজি মহিলা অল-রাউন্ডার এলিস পেরি এক ভিডিওবার্তায় মাস্টার-ব্লাস্টারের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘মহৎ উদ্যোগে সামিল হওয়ার জন্য তোমাকে অভিনন্দন। কিন্তু অবসর ভেঙে জাংশন ওভালে আগামীকাল যদি তুমি ব্যাট হাতে মাঠে নামো তাহলে ব্যাপারটা আরও জমে যাবে।’

পেরির সেই অনুরোধ ফেলতে পারেননি তেন্ডুলকর। চ্যারিটি ম্যাচের উন্মাদনা কয়েকগুণ বাড়িয়ে সাড়ে ৫ বছর পর ব্যাট হাতে মাঠে নামেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০টি শতরানের মালিক।