প্রতীকী ছবি

হাওড়া: মৃতদেহ বহনকারী শববাহী গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটল হাওড়ার ব্যাঁটরায়৷ ওই এলাকায় গাড়িটি পার্কিং করতে আপত্তির কথা জানিয়েছিলেন স্থানীয় বস্তির লোকেরা৷ শনিবার দুপুরে এই নিয়ে ফের গন্ডগোল শুরু হয়৷

গাড়িটি ভাঙচুর করে বস্তির লোকেরা৷ পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশকে ঘিরেও ধাক্কাধাক্কি হয়৷ এলাকায় উত্তেজনা রয়েছে৷ জানা গিয়েছে, নরসিংহ দত্ত রোডের স্থানীয় ওই বস্তিতে গত কয়েক মাসে বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়৷ এলাকার লোকের ধারণা ওই শববাহী গাড়িটি ‘অপয়া’৷ ওই গাড়িটির জন্যই মানুষ মারা যাচ্ছে৷ ফলে ওই এলাকায় শববাহী গাড়ি পার্কিং করা যাবে না বলে বস্তির লোকজন গাড়ির মালিককে জানিয়ে দেন৷ শনিবার সকালে ওই এলাকায় ফের একজন অসুস্থ হয়ে পড়লে ক্ষোভে ফেটে পড়ে স্থানীয় বস্তিবাসীরা৷ তারা দলবল নিয়ে হাজির হয়ে যায় সেখানে৷ শববাহী গাড়িটি ভেঙে ফেলা হয়৷ পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাদের সরাতে গেলে ক্ষুব্ধ বস্তিবাসীরা পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি করে৷ পরে ব্যাঁটরা থানা থেকে আরও ফোর্স আসে৷

শববাহী গাড়ির মালিক শঙ্কর পাছাল বলেন, ‘‘এমন কু-সংস্কার এই যুগে মানা যায়৷ শববাহী গাড়ি রয়েছে বলে লোকজনের অসুখ করছে বা লোকজন মারা যাচ্ছে বলে কেউ শুনেছেন? আমি তো সাধারণ মানুষকে দিবারাত্র পরিষেবা দিই৷ কেন এভাবে গাড়ি ভেঙে ফেলা হবে৷ আমি এর বিচার চাই৷’’ এদিকে, ওই বস্তির তরফে মীরা নামের এক বাসিন্দা বলেন, ‘‘ঘুম থেকে ওঠা বা শুতে যাওয়া সব সময় মড়ার গাড়ি দেখতে কারও ভাল লাগে? ওই গাড়ি আমরা সরিয়ে দিতে বলেছিলাম৷ তা সরানো হচ্ছিল না৷ ওই গাড়ি আসার পর মহল্লায় লোক মারা যাচ্ছে৷ আমার স্বামী অল্প বয়সে মারা গেল৷ আজকে লোকজন রেগে গিয়ে গাড়ি ভেঙে দিয়েছে৷ শুধু এই কারণেই গাড়ি ভাঙা হয়েছে না ঘটনার পিছনে রয়েছে অন্য কারণ পুলিশ তা তদন্ত করে দেখছে৷’’