লখনউ: বুলন্দশহরের হিংসাকে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র বলে আখ্যা দিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে হিংসার ষড়যন্ত্র করে বিরোধীরা৷ বুধবার রাজ্যের বিধানসভায় দাঁড়িয়ে এমনই অভিযোগ করেন যোগী৷

বিজেপি জমানায় রাজ্যের আইন শৃঙ্খলার অবনতি হয়েছে৷ এই অভিযোগে এদিন উত্তাল হয়ে ওঠে বিধানসভা৷ বিরোধী দলের বিধায়করা নিশানা করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে৷ তাদের বিক্ষোভের জেরে পণ্ড হয়ে যায় অধিবেশন৷ তখন অধিবেশন থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সামনে বিরোধীদের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন মুখ্যমন্ত্রী৷ জানান, রাজনৈতিক ভাবে যারা জমি হারিয়েছে তারা এখন ষড়যন্ত্র করছে৷ ৩ ডিসেম্বরের ঘটনাটি যে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র সেটা এখন পরিস্কার৷ রাজ্যে শান্তি ও আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে বদ্ধপরিকর সরকার৷

৩ ডিসেম্বর বুলেন্দশহরের একটি গ্রামের জঙ্গলে ২৫টি গোরুর দেহাংশ পাওয়া যায়৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় কিছু হিন্দু সংগঠনের লোকজন৷ তাদের অভিযোগ, একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের মানুষ বেআইনি ভাবে গোহত্যা করেছে৷ এই নিয়ে দিনভোর উত্তপ্ত থাকে বুলন্দশহর৷ বেলা গড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা হিংসার চেহারা নেয়৷

সেই হিংসায় প্রাণ যায় পুলিশ অফিসার সুবোধ ও এক যুবকের৷ ঘটনাচক্রে এই সুবোধ কুমার সিং মহম্মদ আখলাক গণপিটুনির ঘটনার তদন্ত করেছিলেন৷ বাড়ির ফ্রিজে গোমাংস রাখার অভিযোগে আখলাককে পিটিয়ে খুন করে উন্মত্ত জনতা৷ গণপিটুনিতে নিহত আখলাকের ফ্রিজ থেকে মাংস বের করে সুবোধ পাঠিয়েছিলেন ফরেন্সিক ল্যাবে৷ পরে প্রমাণ হয় সেটি মাটন ছিল৷

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।