লখনউ: উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে গোহত্যাকে কেন্দ্র করে হিংসার ঘটনার দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ এছাড়া হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে প্রায় ৩০ জনের নামে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে৷ গতকাল গোহত্যা ঘিরে হিংসায় দুই জনের প্রাণ গিয়েছে৷ তাদের মধ্যে একজন পুলিশ অফিসার সুবোধ কুমার সিং৷ অন্যজন সুমিত নামে স্থানীয় যুবক৷ পুলিশ এই ঘটনায় দুটি এফআইআর দায়ের করেছে৷ একটি গোহত্যা অপরটি হিংসার ঘটনার নিয়ে৷

পুলিশ জানিয়েছে, দ্বিতীয় এফআইআরে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে অন্তত ২৭ জনের নাম রয়েছে৷ এছাড়া আরও ৬০ জন অজ্ঞাতপরিচয়ের নামও রাখা হয়েছে এফআইআরে৷ এরা সকলে গোহত্যা পরবর্তী হিংসায় জড়িত বলে অভিযোগ৷ গতকালের হিংসার পর পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আসলেও গোটা এলাকা এখনও থমথমে৷ এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা রয়েছে৷ রয়েছে অ্যান্টি রায়ট ফোর্স৷ পুলিশের পাশাপাশি বুলন্দশহর হিংসার তদন্ত করবে সিট৷ এছাড়া ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷

সিট হিংসার তদন্ত করার পাশাপাশি পুলিশ অফিসার সুবোধ কুমার সিংয়ের মৃত্যুর তদন্ত করবে৷ এই পুলিশ অফিসারের মৃত্যু নিয়ে বেশ কিছু প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ যেমন ঘটনার সময় কেন সুবোধকে একা ফেলে চলে গিয়েছিলেন অন্যান্য পুলিশ কর্মীরা? ইত্যাদি নানা প্রশ্নের উত্তর খুঁজবে সিট৷

সোমবার সকালে ঘটনার সূত্রপাত৷ ওইদিন একটি গ্রামের জঙ্গলে ২৫টি গোরুর দেহাংশ মেলে৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় কিছু হিন্দু সংগঠনের লোকজন৷ তাদের অভিযোগ, একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের মানুষ বেআইনি ভাবে গোহত্যা করেছে৷ এই নিয়ে দিনভোর উত্তপ্ত থাকে বুলন্দশহর৷ বেলা গড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা হিংসার চেহারা নেয়৷

সেই হিংসায় প্রাণ যায় পুলিশ অফিসার সুবোধের৷ ঘটনাচক্রে এই সুবোধ কুমার সিং মহম্মদ আখলাক গণপিটুনির ঘটনার তদন্ত করেছিলেন৷ বাড়ির ফ্রিজে গোমাংস রাখার অভিযোগে আখলাককে পিটিয়ে খুন করে উন্মত্ত জনতা৷ গণপিটুনিতে নিহত আখলাকের ফ্রিজ থেকে মাংস বের করে সুবোধ পাঠিয়েছিলেন ফরেন্সিক ল্যাবে৷ পরে প্রমাণ হয় সেটি মাটন ছিল৷

2 COMMENTS

  1. এখনো সময় আছে , লতা মঙ্গেশকর, অমিতাভ বচ্চন, লালকৃষ্ণ আদভানি, মুরলিমনোহর যোশি ও অন্যান্য খেলোয়ার অভিনেতা যারা দেশ কে ভাল বাসেন তাদের এগিয়ে আশা উচিত দেশ বাঁচাতে

Comments are closed.