তুরিন: মাঝে ২০১৮-১৯ মরশুমে একবার প্যারিসে পাড়ি দেওয়া। ওইটুকু বাদ দিলে গিয়ানলুইগি বুফোঁ (Gianluigi Buffon) আর জুভেন্তাস (Juventus) শব্দদু’টো সমার্থক বলা চলে। তবে দীর্ঘ দু’দশক বাদে এবার পাকাপাকি ‘ওল্ড লেডি’কে (Old Lady) ছেড়ে যাচ্ছেন বিশ্বজয়ী গোলরক্ষক। জুনেই জুভেন্তাসের সঙ্গে তাঁর চুক্তি শেষ হচ্ছে। এরপর নতুন করে আর জুভেন্তাসের মায়ায় জড়াবেন না বলে মঙ্গলবার জানিয়েছেন বুফোঁ। যদিও অবসরের কথা ঘোষণা করেননি ৪৩ বছরের ‘তরুণ’।

আসলে জুভেন্তাসের জার্সি গায়ে পাঁচশোরও বেশি ম্যাচ খেলা এই কিংবদন্তি পিএসজি (PSG) থেকে প্রত্যাবর্তনের পর নিয়মিত ম্যাচ-টাইম পাননি। হতে পারে কেরিয়ারকে ‘আলবিদা’ জানানোর আগে নতুন কোনও ক্লাবের হয়ে বেশি করে ম্যাচ খেলতে চাইছেন জুভেন্তাসের জার্সিতে ১০টি সিরি-এ (Serie A) জয়ী ফুটবলার। জুভেন্তাস ছেড়ে যাওয়ার ঘোষণায় বুফোঁ বলেছেন, ‘এই ক্লাবে আমার ভবিষ্যৎ পরিষ্কার। চলতি মরশুমের শেষে জুভের সঙ্গে আমার দীর্ঘ এবং সুন্দর অভিজ্ঞতা শেষ হতে চলেছে। আমি হয় খেলা ছেড়ে দেব নয়তো কোনও মোটিভেশন খুঁজব যা আমাকে খেলতে বাধ্য করে। অথবা জীবনে অন্য কোনও অভিজ্ঞতার স্বাদ খুঁজব। সেটা বিবেচ্য বিষয়।’

তিনি জুভেন্তাসকে যা দিয়েছেন, এর চেয়ে বেশি কিছু তাঁর পক্ষে দেওয়া সম্ভব নয় বলেও জানিয়েছেন বুফোঁ। আটালান্টার (Atalanta) বিরুদ্ধে আগামী ১৯ মে লিগের শেষ ম্যাচই জুভেন্তাসের হয়ে শেষ ম্যাচ হতে চলেছে ইতালির কিংবদন্তি গোলরক্ষকের। উল্লেখ্য, পারমা থেকে ২০০১ তুরিনের ক্লাবে যোগ দিয়েছিলেন বুফোঁ।  এদিকে কিংবদন্তির জুভেন্তাস ছাড়ার খবর শুনেই আসরে নেমে পড়ল বার্সেলোনা (Barcelona)। অভিজ্ঞ গোলরক্ষককে পেতে আগ্রহ প্রকাশ করল কাতালোনিয়া ক্লাব। ফুট মারকাতো’র (Fooot Mercato) রিপোর্ট অনুসারে ইতালিয়ান গোলরক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছে বার্সা। টার স্টেগেনের (Ter Stegen) ব্যাক-আপ হিসেবে বুফোঁ’র কথা ভাবছে স্প্যানিশ ক্লাবটি।

জুনেই ফ্রি-ফুটবলার হয়ে যাচ্ছেন বুফোঁ। স্বাভাবিকভাবেই তাঁকে দলে নিতে বিশেষ সমস্যা হওয়ার কথা নয়। কিন্তু বুফোঁ কতোটা বার্সেলোনার ডাকে সাড়া দেবেন, সেটাই দেখার। তাছাড়া দলবদলের বাজারে বেশ কিছু বড় নাম যুক্ত হয়ে হয়েছে বার্সেলোনার সঙ্গে। আগুয়েরো (Sergio Aguero) সিটি ছাড়ছেন। সুতরাং, মেসির পাশে তাঁর দেশের স্ট্রাইকারকে পেতে ঝাঁপিয়েছে বার্সা। এছাড়া এরিক গার্সিয়ার (Eric Garcia) সঙ্গেও কথা চলছে তাদের।

বরুসিয়ার টিন-এজ স্ট্রাইকার আর্লিং হ্যালান্ড (Erling Haaland) এখনও বার্সেলোনার প্রধান টার্গেট। এছাড়া লিয়ঁ স্ট্রাইকার মেম্ফিস ডিপে (Memphis Depay), লিভারপুলের জর্জিনিও উইনালডামের (Georginio Wijnaldum) দিকেও হাত বাড়িয়েছে কাতালান ক্লাব।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.