কলকাতা: তিনি আরও বলেন, তৃণমূলের আমলে সন্ত্রাসের আঁতুড়ঘর তৈরি হচ্ছে রাজ্যে। পুরভোটের আগে বাম কর্মীদের উদ্দেশে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক প্রতিরোধের ডাক দিয়ে একথা জানিয়েছেন সিপিআইএম নেতা বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। বৃহস্পতিবার এক প্রেস বিবৃতিতে তিনি বলেন, তৃণমূলের দুষ্কৃতীদের আক্রমণ রোখা যাবে কিনা তা নিয়ে কিছু বাম কর্মীর মনে আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে। বিবৃতিতে সেই আশঙ্কা দূরে সরিয়ে ভোটের দিন সঙ্ঘবদ্ধ ও সর্বাত্মক প্রতিরোধের ডাক দিয়েছেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। বাধা-বিপত্তি অগ্রাহ্য করে সাধারণ মানুষকে নির্ভয়ে ভোট দেওয়ার আহ্বানও জানিয়েছেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য।

এদিকে, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য বিবৃতি দেওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই কড়া প্রতিক্রিয়া দিলেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর মতে নির্বাচনের আগে মানুষের সমর্থন পেতে ব্যর্থ সিপিআইএম। বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বিবৃতি পরাজয়েরই ইঙ্গিত। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অভিযোগ, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বিবৃতি কর্মসূচিহীন। সিপিআইএম নেতারা যখন ইনজেকশন দিয়েও কর্মীদের রাস্তায় নামাতে পারছেন না, তখন তাঁদের চাগাতে এই ধরনের বিবৃতি দিচ্ছেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। হার্মাদ বাহিনীকে পথে নামলে, মানুষই তার জবাব দেবে। এমনটাও উল্লেখ করেছেন বুদ্ধদেব।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।