জামশেদপুর: ১৫ বছরের এক কিশোরিকে ধর্ষণের অভিযোগে এক সন্ন্যাসীকে গ্রেফতার করল ঝাড়খন্ড পুলিশ ৷ সুত্রের খবর, এই কিশোরীকে অভিযুক্ত সন্ন্যাসী দীর্ঘ দিন আশ্রমে আটকে রাখে৷ পুলিশকে এই কিশোরী জানায়, তাকে গত ১৮ই ডিসেম্বর ভারত সেবাশ্রম সংঘের জমশেদপুরের শাখায় অভিযুক্ত সন্ন্যাসী তাকে ধর্ষণ করে৷ তার অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করে পুলিশ৷

পুলিশ সূত্রে খবর, কিশোরী জানায়, তার দাদা এবং বৌদির সঙ্গে সে জামশেদপুর যায়৷ কালগানগরের ভাড়া বাড়িতে যাওয়ার আগে প্রায় ১০ দিন তারা বিএসএসের সোনারি কমপ্লেক্সে ছিল৷ এই কমপ্লেক্সের একটি মন্দিরে দর্শন করতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ অভিযোগকারিনীর৷

আরও পড়ুন: সিরিয়া থেকে সেনা সরানোর সিদ্ধান্তের পর বড় ধাক্কা ট্রাম্পের

ঘটনার পর থেকে চাঞ্চল্য ছড়ায় ওই এলাকায়৷ অভিযোগকারিনীর ভাই জানায়, ঘটনার দিন তার বোনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না৷ এলাকার সব জায়গায় তার খোঁজ শুরু হয়৷ শেষ পর্যন্ত বোনকে সে অভিযুক্ত সন্ন্যাসীর বাড়ির বাথরুম থেকে খুঁজে পায়৷

উদ্ধার হওয়ার পর থেকে রীতিমতো আতঙ্কে ছিল এই কিশোরী৷ তার পর তার দাদা এবং বৌদিকে পুরো ঘটনাটি জানায় সে৷ ঘটনার বিষয় জানতে পেরে নিজের বোনকে নিয়ে পুলিশের কাছে যায় সে৷ অভিযোগ পেয়ে ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ৷ অভিযুক্ত এই সন্ন্যাসীকে গ্রেফতার করেন তদন্তকারীরা৷ ধৃত কে দফায় দফায় জেরা তকা হয়৷

ঝাড়খন্ড পুলিশ ইতিমধ্যেই চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটিতেও বিষয়টি জানায়৷ এক পুলিশ কর্তা জানান, ”অভিযোগ পেয়ে আমরা ঘটনার তদন্তে শুরু করি৷ তদন্তে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু তথ্য পাওয়া গিয়েছে এই সন্ন্যাসীর বিরুদ্ধে৷ আশ্রমের অন্য ব্যাক্তিদেরও জিজ্ঞাশাবাদ করা হচ্ছে৷” অভিযুক্ত সন্ন্যাসীকে গ্রেফতার করার পর দফায় দফায় তাকে জেরা করছে পুলিশ৷ অন্যদিকে অভিযোগকারিনীকে মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য পাঠান হয়েছে৷

আরও পড়ুন: সাতসকালে সরকারী কর্মচারীদের জন্য দারুণ খবর, বাড়ছে বেতন

এক তদন্তকারি জানান, ”এই ঘটনায় অভিযুক্তর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে কিশোরির মেডিক্যাল রিপোর্ট অত্যন্ত প্রযোজনীয়৷ অভিযুক্ত কে জেরা করে জানার চেষ্টা চলছে এর আগেও এই ধরনের ঘটনায় তিনি জড়িত ছিলেন কি না৷” চলতি বছরে এর আগেও ধর্ষণের অভিযোগে গয়া থেকে এক সন্ন্যাসীকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ৷

তার বিরুদ্ধেও ১৫ বছরের এক কিশোরিকে যৌণ নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছিল৷ কিশোরি ঘটনার বিষয় বাবা মা কে জানতেই এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসে৷ গ্রেফতার করা হয় তাকে৷