ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: লোকসভা ভোটের আর বেশিদিন বাকি নেই। তার আগেই সব ছক সাজিয়ে নিতে ব্যস্ত রাজনৈতিক নেতারা। ইতিমধ্যেই দফায় দফায় বৈঠক চলছে বিভিন্ন দলের। জোরদার হচ্ছে মহাজোটের জল্পনা। এরই মধ্যে বাধ সাধলেন মায়াবতী।

২০১৯-র লোকসভা নির্বাচনে মধ্যপ্রদেশের ২৯টি আসনেই একা লড়বেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মায়াবতী ৷ বিএসপির সর্বভারতীয় সভাপতি রামজি গৌতম সোমবার এক সাংবাদিক বৈঠকে একথা জানিয়েছেন৷

সদ্য শেষ হয়েছে মধ্যপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচন। সেখানেও কোনও জোটে না গিয়ে একাই লড়েছিল মায়াবতী নেতৃত্বাধীন বিএসপি৷ মাত্র দু’টি আসনে জয়ী হয় বিএসপি৷ উত্তরপ্রদেশে বিএসপি-র জোরাল দাপট থাকলেও মধ্যপ্রদেশে বেশ খানিকটা দুর্বল মায়াবতীর দল৷ কিন্তু তা স্বত্ত্বেও জোটে না গিয়ে ১৯-র নির্বাচনে একা লড়ারই সিদ্ধান্ত নিলেন বিএসপি সুপ্রিমো ৷

গত বেশ কয়েকমাস ধরেই মহাজোট নিয়ে তোড়জোড় চলছে জোরকদমে৷ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নাইডু মহাজোটের জন্য দিল্লিতে কিছুদিন আগেই একটি বৈঠক করেন ৷ কিন্তু সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না মায়াবতী ৷

এদিকে, কংগ্রেস সূত্রের খবর, জানুয়ারি মাসে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর সঙ্গে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির বৈঠক যাওয়ার কথা৷ সেখানে বাংলা ও ত্রিপুরার আসন সমঝোতা নিয়ে কথা হতে পারে৷ সম্প্রতি কলকাতায় সীতারাম ইয়েচুরি কংগ্রেসকে সরাসরি জোটের বার্তা দিয়েছেন৷ এবং সেইসঙ্গে ব্রিগেডে কংগ্রেসকে আমন্ত্রণ জানানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন৷ এদিকে, সিপিএমের সঙ্গে কংগ্রেসের অধীর চৌধুরী, আব্দুল মান্নানরা আগে থেকেই জোটে রাজি থাকলেও প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র একক লড়াইয়েরই পক্ষপাতি৷