ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, রায়গঞ্জ: ২২৭ কিমি বিস্তৃত উত্তর দিনাজপুরের ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে সম্মত বিএসএফ ও জেলা প্রশাসন৷ মঙ্গলবার রায়গঞ্জ কর্ণজোড়ায় মাল্টিপারপাস হলে যৌথ মিটিং করল বিএসএফ ও উত্তর দিনাজপুর জেলা পুলিশ প্রশাসন।

উত্তর দিনাজপুর জেলায় আইনশৃঙ্খলার উন্নতি, চোরাচালান রোধ কীভাবে করা যায় বৈঠকে মূলত আলোচনা হয় সেই সব বিষয় নিয়ে৷ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএসএফের রায়গঞ্জ সেক্টরের ডিআইজি টি জি সিমটে এবং ছয়টি ব্যাটালিয়ানের কমান্ডন্ডেন্ট, অ্যাসিস্ট্যান্ট কমান্ডন্ডেন্ট সহ বিএসএফের আধিকারিকরা৷ ছিলেন উত্তর দিনাজপুর জেলাশাসক অরবিন্দ কুমার মীনা, জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার সহ জেলা পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকেরা৷

ফাইল ছবি

সীমান্ত সুরক্ষার পাশাপাশি সীমান্ত লাগোয়া গ্রামগুলিতে বিএসএফের নজরদারি জোরদার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি বিএসএফ-পুলিশ সমন্বয় রেখে কাজ করার উপর জোর দেওয়া হয়েছে।

উত্তর দিনাজপুর জেলার তিনদিক ঘিরেই রয়েছে ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমারেখা। ২২৭ কিলোমিটার এই আন্তর্জাতিক সীমানার ওপারে আজও বহু ভারতীয়ের কৃষিজমি থেকে ঘরবাড়ি রয়ে গিয়েছে। বিএসএফের কড়া নজরদারির মধ্যে সীমান্তের গেট দিয়ে নির্ধারিত সময়ে এপারের মানুষ ওপারে গিয়ে চাষাবাদ করে। সম্প্রতি সীমান্তে চোরাচালান, নারী ও শিশু পাচারসহ একাধিক অপরাধমূলক ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় উদ্বিগ্ন প্রশাসন।

আগামী বছরের গোড়াতেই দেশের লোকসভা নির্বাচন। সীমান্ত পেরিয়ে এপারে এসে কোনও নাশকতামূলক কাজকর্ম যাতে না ঘটে তারজন্য সতর্ক প্রশাসন৷ আগে থাকতেই জেলায় থাকা ১৪৬, ১৭১, ৯৪, ১৩৫, ৫১, ১৬৭ নম্বর মোট ছটি ব্যাটালিয়ানের বিএসএফ আধিকারিকদের সাথে বৈঠক করলেন উত্তর দিনাজপুর জেলাশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারসহ জেলা পুলিশ প্রশাসনের আধিকারিকেরা।

উত্তর দিনাজপুর জেলাশাসক অরবিন্দ কুমার মীনা জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক সীমারেখা বরাবর গ্রামগুলিতে শান্তিশৃঙখলা বজায় রাখার জন্য বিএসএফ ও পুলিশ সমন্বয় রেখে কাজ করবে। সীমান্তে যাতে অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য বিএসএফ জওয়ানদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানালেন বিএসএফের রায়গঞ্জ সেক্টরের ডিআইজি৷

পাশাপাশি রোহিঙ্গা নিয়েও তারা সতর্ক দৃষ্টি রেখেছেন বলে জানান বিএসএফ কর্তা। তিনি এও জানান, পুলিশ ও প্রশাসনের সাথে সমন্বয় রেখে কাজ করার ফলে সীমান্তে আইনশৃঙখলার অনেক উন্নতি ঘটেছে। কমেছে চোরাচালান, গরুপাচারসহ নানা অপরাধমূলক কাজকর্ম। জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার ও জেলাশাসক অরবিন্দ কুমার মীনা জানিয়েছেন, জেলার আন্তর্জাতিক সীমান্ত এলাকাজুড়ে যেসব গ্রাম রয়েছে সেসব গ্রামগুলিতে চোরাচালান, পাচারসহ অপরাধমূলক কাজকর্ম প্রতিরোধে বিএসএফ এর সাথে সমন্বয় রেখে আইনশৃঙখলা বজায় রাখার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।