ঢাকা: স্বামী দা নিয়ে তাড়া করছে, ভয়ে পালাচ্ছে স্ত্রী। তারপর? মাত্র এক ঘণ্টার মধ্যে চারজনকে কুপিয়ে খুন করে নিজেই আত্মঘাতী হল আততায়ী।

ঘটনা ভারত সীমান্তের লাগোয়া সিলেটের মৌলভীবাজারের পাল্লাতল চা বাগানের। দুর্গম এলাকাটির একদিকে ত্রিপুরা পড়ছে। হামলাকারীর নাম নির্মল কর্মকার। সে পাল্লাতল চা বাগানের অস্থায়ী শ্রমিক।

বিবিসি জানাচ্ছে, ঘটনাস্থলটি অত্যন্ত দুর্গম ও দূরবর্তী স্থানে হওয়ায় নির্ভরযোগ্য বিস্তারিত তথ্য এখনো পাওয়া যাচ্ছে না।

মৌলভীবাজার থানা সূত্রে খবর, স্ত্রী, কন্যা, শাশুড়ি ও এক প্রতিবেশীকে কুপিয়ে খুন করে ঠিকা চা শ্রমিক নির্মল। তারপর গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

ঘটনার জেরে ওই গ্রাম ও চা বাগান এলাকায় প্রবল আতঙ্ক। পুলিশ ও সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি ঘটনাস্থলে গিয়েছে। চা বাগানটি মৌলভীবাজার জেলা সদর থেকে ৯০ কিলোমিটার দূরে। বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্ত লাগোয়া।

সেখানকার যাতায়াত ব্যবস্থা খুবই খারাপ। দুর্গম এলাকার পাল্লাতল চা বাগানের শ্রমিকরাই থাকেন। ঠিকা শ্রমিক নির্মল সেই সূত্রে সেখানকার বাসিন্দা।

পুলিশ মনে করছে পারিবারিক ঝগড়ার কারণেই নির্মল দা দিয়ে কুপিয়ে সবাইকে খুন করেছে। তাকে বাধা দিতে গিয়েও একজনের মৃত্যু হয়। আরও একজন জখম।

চা বাগান কর্তৃপক্ষের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, নির্মল কর্মকার রবিবার ভোরে বাড়ি পৌঁছানোর পর স্ত্রীর সঙ্গে বচসা শুরু করে। তাকে দা নিয়ে ধাওয়া করে।

তার স্ত্রী প্রাণ বাঁচাতে দৌড়ে পালাতে যায়। এরপর নির্মল তাকে বাগে পেয়ে নির্মমভাবে কুপিয়ে মারে। একইভাবে কন্যা ও শাশুড়িকে খুন করে।