স্টাফ রিপোর্টার, কাঁথি: এতদিন চাকরির নাম করে প্রতারণার কাজ বেশ ভালোই চলছিল। কিন্তু এবার প্রতারিতদের হাতে পড়ে কার্যত গনপিটুনির শিকার হতে হল কাঁথি পুরসভার তৃণমূল কাউন্সিলরের জ‍্যেঠতুতো ভাইকে। অভিযোগ, দিনের পর দিন চাকরি দেওয়ার নাম করে বহু মানুষের কাছ থেকে কাটমানি নিয়েছেন কাঁথি পুরসভার তৃণমূল কাউন্সিলর অতনু গিরির জ‍্যেঠতুতো ভাই কাঞ্চন গিরি।

শনিবার বিকেলে এই অভিযোগে প্রতারক কাঞ্চন গিরিকে গনপিটুনি দিয়ে জুতোর মালা গলায় পরিয়ে বেশ কিছুটা পথ ঘোরালো প্রতারিতরা। এরপর অকপট ক‍্যামেরার সামনে নিজের প্রতারণার কথা স্বীকার করে নেন ওই প্রতারক। আর ওই ভিডিও স্যোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে পড়ে গোটা এলাকায়।

যাকে কেন্দ্র করে কার্যত শোরগোল পড়ে যায় সমগ্র এলাকার রাজনৈতিক মহলে। তৃণমূল নেতা তথা কাউন্সিলরের ভাই, এই ছিল এলাকায় কাঞ্চনের পরিচয়। যাকে হাত করে এলাকায় দিনের পর দিন এলাকায় প্রভাবশালী হয়ে ওঠে কাঞ্চন। সে নাকি সরকারি চাকরিও করে দিতে পারে। তবে এর বিনিময়ে তাকে দিতে হয় কাটমানি।

আরও পড়ুন : ‘গোর্খাল্যান্ড’ কে সমর্থন অমিত শাহের, অস্বস্তিতে রাজ্য বিজেপি

কিন্তু এতদিন ধরে তাকে কটমানি দেওয়ার পরও হাতে চাকরির নিয়োগপত্র পাননি কেউই। যার ফলে কয়েকবার টাকা ফেরতের জন্য তাগাদা দেন মারিষদার বেশ কয়েকজন প্রতারিত ব‍্যাক্তিরা। কিন্তু তাতে কোনো কাজ হয়নি। এরপর শনিবার তারা ফের তাগাদার জন্য আসে। কিন্তু টাকা না পাওয়ায় এমন পরিস্থিতিতে ওই প্রতারককে ঠিক মতো বাগে পেয়ে গনপিটুনি দিতে শুরু করে প্রতারিতরা।

এরপর তাকে আস্ত জুতোর মালা পরিয়ে বেশকিছুটা পথ ঘোরান তারা। এমনকি মোবাইল ক‍্যামেরার ভিডিওগ্রাফির সামনে জুতোর মালা পরে করজোড়ে টাকা নিয়ে প্রতারণার কথা স্বীকার করে নেন ওই ব‍্যাক্তি। যে ভিডিও মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। শোরগোল পড়ে যায় এলাকার রাজনৈতিক মহলেও।

আরও পড়ুন : কৃষ্ণ-অর্জুনের কথা মনে করায় মোদী-শাহ জুটি: রজনীকান্ত

এনিয়ে কাঁথি সংগঠনিক জেলা বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি তপন মাইতি তৃণমূলকে কটাক্ষ করে বলেন,”দিদির ভায়েরা এত বেশি কাটমানি খেয়েছে সবাইয়ের বদ হজম হয়েছে। যেসব রাঘববোয়ালরা কাটমানি খেয়েছেন তারাও সাবধান হয়ে যান। মানুষ সব বুঝে গেছে। রাস্তায় বেরলেই হয় গনপিটুনি খেতে হবে নয়তো জুতোর মালা পরে ঘুরতে হবে।”

শনিবারের এই ঘটনায় পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূলের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক কণিষ্ক পন্ডা বলেন,”ওই ব‍্যাক্তি কাউন্সিলের নিজের ভাই নয়। ওর সঙ্গে দলের কোনো সম্পর্ক নেই। তৃণমূলের নাম করে যদি কেউ অন‍্যায় করে তার দায় আমাদের নয়”। সব মিলিয়ে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শোরগোল পড়ে যায় এলাকার রাজনৈতিক মহলে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।