চণ্ডীগড়: রাস্তায় ফেলে এক মহিলাকে পেটানো হচ্ছে। একজন নয়, একাধিক ব্যক্তি পেটাচ্ছে ওই মহিলাকে। আর এই হামলার নেতৃত্ব দিচ্ছে স্থানীয় কাউন্সিলরের ভাই। সেই কাউন্সিলর আবার রাজ্যের শাসকদলের কাউন্সিলর।

এমনই ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেই ভিডিও-তে দেখা গিয়েছে, এক মহিলাকে বাড়ি থেকে রাস্তায় নিয়ে এসে বেধড়ক মারধোর করা হচ্ছে। যা মারছে সে কংগেস কাউন্সিলরের ভাই। তার সঙ্গে দোসর রয়েছে আরও কয়েকজন।

রাস্তায় ফেলে লাঠি এবং বেল্ট দিয়ে মারা হচ্ছে ওই মহিলাকে। অপর এক মহিলা আটকাতে গেলে তাঁকেও আক্রান্ত হতে হচ্ছে। কাউন্সিলরের ভাই এবং তার অনুগামীরা সেই মহিলাকেও মারধোর করতে শুরু করল। প্রায় একই গতিতে চলল প্রহার।

ঘটনাটি কংগ্রেস শাসিত রাজ্য পঞ্জাবের। ওই রাজ্যের শ্রী মুক্তসার সাহেব জেলার ঘটনা। সেখানের মুক্তসার পুরনিগমের কাউন্সলিলর রাকেষ চৌধুরীর ভাই এই ঘটনার প্রধান অভিযুক্ত। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, টাকা ধার নিয়ে এই বিবাদ। আক্রান্ত মহিলা টাকা ধার করেছিলেন। সেই টাকা সময়ে শোধ করতে না পারাতেই তাঁর উপরে হামলা চালান হয়। বুদা গুজ্জার রোডের উপরে ফেলে পেটানো হয় তাঁকে।

এই বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ সুপার মনোজ দেশাই জানিয়েছেন যে এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক একটি ঘটনা। অভিযুক্তের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ছয় জন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। গুরিতর জখম অবস্থায় আক্রান্ত মহিলাকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে।

কিন্তু শাসকদলের কাউন্সিলরের ভাই বলে কথা! অভিযুক্ত কী আদৌ শাস্তি পাবে? এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেছেন, “আর পাঁচটা অভিযুক্তের মতোই এই মামলার অভিযুক্তের সঙ্গে একই আচরণ করবে পুলিশ। তদন্তে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ গ্রাহ্য করা হবে না।”