স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মঙ্গেলবারের সন্ধ্যায় বিজেপি টিএমসিপি সংঘর্ষ৷ রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে কলকাতার বিধান সরণি৷ ভাঙা হয় বিদ্যাসাগরের মূর্তি৷ মুখ্যমন্ত্রীর নিশানায় গেরুয়া শিবির৷ কড়া ভাষায় প্রতিবাদ জানিয়েছেন তিনি৷

এবার নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক ও ট্যুইটার অ্যাকাউন্টের প্রোফাইলের ছবিও বদলে ফেললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মঙ্গলবার রাতেই দেখা যায় তাঁর ট্যুইটার অ্যাকাউন্টের প্রোফাইলে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের ছবি দেওয়া রয়েছে৷ এও এক প্রতিবাদের ভাষা৷ মনে করছে শাসক দলের নেতৃত্ব৷ প্রোফাল হিসাবে এর আগে নিজের ছবিই ব্যবহার করতেন মুখ্যমন্ত্রী৷

অমিত শাহের রোড শোয়ের সময়ই এদিন সন্ধ্যায় বিজেপি ও টিএমসিপি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে কলেজ স্ট্রিট ও বিধান সরণিতে৷ বাইকে আগুন দেওয়া হয়৷ চলে ইঁট বৃষ্টি৷ আহাত হয় উভয় পক্ষের বেশ কয়েক জন৷ ধুন্ধুমার পরিস্থিতির মধ্যেই ভেঙে দেওয়া হয় কলেজের মধ্যেকার বিদ্যাসাগরের মূর্তি৷

আরও পড়ুন: বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদে আজ শহরে বামেদের মিছিল

রাতে ঘটনাস্থলে যান মুখ্যমন্ত্রী৷ এই বর্বরচিত ঘটনার দায়ে চাপান বিজেপির ঘাড়ে৷ বলেন, ‘‘বিহার, রাজস্থান থেকে গুণ্ডা এনেছে বিজেপি৷ তাদেরকে দিয়েই এই দাঙ্গা করিয়েছে বিজেপি৷ এই ধরণের ঘটনার জন্য আমরা লজ্জিত৷ ভোটে হারবে জেনেই বিজেপি এইসব করছে৷’’ তাঁর প্রশ্ন, ‘‘যারা মণিষীদের সম্মান দিতে জানেন না তারা দেশ চালাবে কি করে৷’’ মঙ্গলবার সন্ধ্যার ঘটনা ঘিরে উচ্চ-পর্যায়ের তদন্ত হবে বলেও জানিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী৷

মূর্তি ভাঙাকাণ্ডে সরব রাজ্যের বিশিষ্টজনেরা৷ এই ধরণের ঘটনা বাঙালির ভাবাবেগে আঘাত বলে মনে করা হচ্ছে৷ লজ্জাজনক ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বুধবার রাজ্যে মিথিল করবে রাজ্যের শাসক দল৷ ঘটনার পরপরই মুখ্যমন্ত্রী হুঁশিয়ারির সুরে বলে দেন, ‘‘রাজ্যে কোনও হেরিটেজের গায়ে হাত পড়লে তাঁর থেকে ভয়ঙ্কর কেউ হবে না৷’’

শুধু মুখে প্রতিবাদ করেই থেমে যাওয়া নয় বা প্রশাসনের কঠোর পদক্ষেপ নয়৷ ভিন্নধারাতে প্রতিবাদ করে মুখ্যমন্ত্রী বোঝাতে চাইছেন মূর্তি ভাঙার ঘটনা ব্যক্তি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর কতটা গভীর ক্ষত তৈরি করেছে৷