লন্ডন: ব্রেক্সিট চুক্তিতে দলের সাংসদদের সমর্থন জোগাড় করতে ব্যর্থ তিনি। আগামী ৭ জুন পার্লামেন্টে কনজারভেটিভ পার্টির নেত্রী পদ থেকে ইস্তফা দেবেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। অর্থাৎ, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী পদে থেরেসা মে-র মেয়াদ আর স্বল্পকিছুদিনের জন্য।

কিন্তু যুক্তরাজ্য এখন কাবু ক্রিকেট জ্বরে। বুধবার বাকিংহ্যাম প্যালেসের সামনে সেন্ট্রাল লন্ডনের অভিজাত রাস্তায় ভিন্ন ধারার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সাক্ষী থেকেছে ক্রিকেট বিশ্ব। এরপর রাণী দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে তাঁর বাসভবনে গিয়ে দেখা করেন বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী ১০টি দেশের অধিনায়কেরা। সবমিলিয়ে যুক্তরাজ্যের অলি-গলিতে ঢুঁ মারলেই এখন ক্রিকেটের ফ্লেভার পাবেন অনুরাগীরা। এমন সময় ব্রেক্সিটের লড়াই মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে ক্রিকেটের লড়াই দেখতে উদ্বোধনী ম্যাচ দেখতে দ্য ওভালে হাজির ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে।

ডাউনিং স্ট্রিটে নিজের বাসভবন থেকে ওভাল ক্রিকেট গ্রাউন্ডে যাওয়ার সময় এদিন মে’কে অনেকটাই রিল্যাক্সড মুডে পাওয়া যায়। জানা গিয়েছে, প্রাথমিকভাবে পরিকল্পনা না থাকলেও বিশ্বকাপের দামামা বাজতেই নিজেকে আর ঠিক রাখতে পারেননি জিওফ্রে বয়কটের অনুরাগী থেরেসা মে। ইংল্যান্ড-দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ দেখতে হাজির হয়ে যান তিনি। তার আগে স্টুডেন্ট ফান্ডিংয়ের উপর একটি বিবৃতি দেন ব্রিটেনের বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী। এই ম্যাচের মধ্যে দিয়েই বিশ বছর বাদে যুক্তরাজ্যের মাটিতে পর্দা উঠল বিশ্বকাপের।

উল্লেখ্য, শুক্রবার ইস্তফা ঘোষণার সময় কন্ঠ ক্ষীণ হয়ে আসে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর। ভিজে গলায় তিনি বলেন, আমি যা পারতাম তা আমি করার চেষ্টা করেছি। ডাউনিং স্ট্রিটের বাড়ির বাইরে দাঁড়িয়ে একটি বিবৃতিতে এদিন মে বলেন, ‘এটা আমার কাছে খুব দুঃখের বিষয় যে, ব্রেক্সিটটা আমি করতে পারলাম না। এই দুঃখটা আমার থেকেই যাবে।’ একইসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আগামী ৭ জুন, শুক্রবার কনজারভেটিভ ও ইউনিয়নিস্ট পার্টির নেত্রী পদে আমি ইস্তফা দেব। নতুন নেতা বাছাইয়ের কাজ তার পরের সপ্তাহেই শুরু হবে।’ উল্লেখ্য, উদ্বোধনী ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে আপাতত বড় রানের লক্ষ্যে আয়োজক ইংল্যান্ড। অর্ধশতরান করেছেন ওপেনার জেসন রয়, জো রুট, অধিনায়ক মর্গ্যান ও বেন স্টোকস।