তেহেরান: ব্রিটেন জিব্রাল্টার প্রণালি থেকে একটি ইরানি সুপার তেল ট্যাংকার আটক হওয়ার পর ইরানের বিদেশমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফের বক্তব্য, এমন ঘটনায় প্রমাণিত ব্রিটেন আমেরিকার উপর নির্ভরশীল। লেবাননের আল মিয়াদিন টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানান ।

ইরানি তেল ট্যাংকার আটকের ঘটনাকে জলদস্যুতা বলে উল্লেখ করে আরও বলেছেন, ব্রিটিশরা তাদের কাজ কর্মের মাধ্যমে প্রমাণ দিচ্ছে তারা আমেরিকার তাবেদার হয়ে উঠছে এবং একবারে ওয়াশিংটনের অনুরোধেই এভাবে তেল ট্যাংকার আটক করেছে। জাওয়াদ জারিফেরর অভিমত, মার্কিনীরা ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে বন্ধুত্বের সুযোগে ওয়াশিংটনে নিযুক্ত সেদেশের রাষ্ট্রদূতকেও অবমাননা করেছে।

প্রসঙ্গত, ৪ জুলাই ব্রিটিশ নৌ সেনারা জিব্রাল্টার প্রণালি থেকে ইরানের তেল ট্যাংকার আটক করা হয়। জাহাজটি সিরিয়ার বিরুদ্ধে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে এগোচ্ছিল ওই দেশটির দিকে ৷ আর টাওয়ার পথে আটক করা হয়েছে বলে লন্ডনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। কিন্তু ইরানের বিদেশ মন্ত্রণালয় ব্রিটেনের এ অভিযোগকে প্রত্যাখ্যান করে যত দ্রুত সম্ভব জাহাজটিকে ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

ইরানের তেলবাহী জাহাজটি এখনও আটক রয়েছে কারণ জিব্রাল্টার স্থানীয় পুলিশের দাবি , ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় জাহাজের নাবিকদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পর্যবেক্ষকদের বক্তব্য, ব্রিটিশ সরকারের রাজনৈতিক খেলা থেকে বোঝা যায়, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যেতে আগ্রহী ব্রিটেন আগের চেয়ে আরও বেশি আমেরিকার ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন আমেরিকার নিষেধাজ্ঞার বিরোধিতা করলেও ব্রিটেন ঠিকই আমেরিকাকে সহযোগিতা করে যাচ্ছে। ব্রিটেন ও আমেরিকার মধ্যে বন্ধুত্বের ইতিহাস কেবল জাহাজ আটকের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। ইরান ইস্যুতে তারা বহু আগে থেকেই ঐক্যবদ্ধ।