স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: বাঁকুড়ার সিমলাপালের শিলাবতী নদীর উপর দিয়ে যাওয়া দুশো ফুটের সেতুর বেহাল দশা৷ বহু পুরনো এবং গুরুত্বপূর্ণ এই সেতুর উপর দিয়ে প্রতিদিন চলাচল করে অসংখ্য যাত্রী এবং পণ্যবাহী ভারী গাড়ি। বাঁকুড়া এবং ঝাড়গ্রামের মধ্যবর্তী এই সেতুর ওপরে ধীরে ধীরে পড়ছে বয়সের থাবা। দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ার কারণে ক্রমেই জীর্ণ হয়ে পড়ছে এই সেতু।

প্রায় দু’শো ফুট লম্বা এই সেতুর উপর দেখা দিয়েছে ফাটল, দু’পাশের গার্ড পিলারের বেশীরভাগই ভেঙ্গে পড়েছে। একই সঙ্গে ঐ সেতুটি অত্যন্ত নিচু হওয়ায় নদীতে জল বাড়লেই তা ডুবে যায়। এই অবস্থায় বাঁকুড়া-ঝাড়গ্রাম রাজ্য সড়কে যান চলাচল যেমন বন্ধ হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি বিক্রমপুর, দুবরাজপুর গ্রাম পঞ্চায়েত শতাধিক গ্রামের মানুষের ব্লক সদরে পৌঁছাতে পারেননা। ফলে চরম ভোগান্তির শিকার একটা বড় অংশের মানুষের। এলাকাবাসীর দাবী সাধারণ মানুষের কথা ভেবে ভগ্নপ্রায় এই সেতুটি ভেঙ্গে নতুন সেতু তৈরী হোক।

এলাকাবাসীর দাবি, স্থানীয় প্রশাসনকে এই বিষয়ে জানানো হলেও কোন কাজ হয়নি। যা নিয়ে সাধারণের মনে ক্ষোভ বাড়ছে। সাধারণ মানুষের একটাই দাবি এই সেতুটি নতুন করে তৈরি করে দিতে হবে, যাতে তারাও জরুরি পরিষেবা পাওয়ার জন্য এটি ব্যবহার করতে পারেন। বর্ষাকালে সেতুটি জলের তলায় চলে যাওয়ার জন্য মানুষজন চরম ভোগান্তির শিকার হন। স্থানীয় বাসিন্দা তাপস পাল, আলি হুসেন মণ্ডলরা বলেন, বিষয়টি প্রশাসনকে বারবার জানানো হয়েছে। কোন কাজ হয়নি।

সিমলিপালের বিডিও রথীন্দ্রনাথ অধিকারী এই প্রসঙ্গে জানান সেতুটি অনেক পুরনো এবং এটি বিষ্ণুপুর পিডব্লুডির আওতাধীন। সেতুটি নতুন ভাবে সারানো নিয়ে তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে বলেও জানান তিনি। এছাড়াও ওই একই জায়গাতে নতুন আর একটি সেতুর প্রস্তাব রয়েছে যা খুব দ্রুত অনুমোদিত হয়ে যাবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।