মেদিনীপুর: সাংসদ মানস ভূঁইয়াকে ফোনে খুনের হুমকি দেওয়ার ঘটনায় গ্রেফতার হল অভিযুক্ত। ধৃতর নাম ভবেশ মাহাত৷ ধৃতের বাড়ি সবং-এর বিডিও অফিসের পিছনের দিকে৷

জানা গিয়েছে, রবিবার রাত প্রথমে ৮ টা ৫২ মিনিট নাগাদ সাংসদ মানস ভুঁইয়ার কাছে একটি ফোন আসে৷ তারপর ৮ টা ৫৩ মিনিট নাগাদ ফের ওই একই নম্বর থেকে ফোন আসে৷ ফোন করে এক ব্যক্তি অশ্রাব্য গালিগালাজ করার পাশাপাশি সাংসদকে খুনেরও হুমকি দেয় বলে অভিযোগ। ঘটনার পরে সবং থানা ও জেলা পুলিশ সুপারকে ফোনে পুরো বিষয়টি জানান মানস বাবু।

পাশাপাশি ঘটনা নিয়ে সবং থানায় রবিবার রাতেই অভিযোগ দায়ের করেন সবং ব্লকের যুব সভাপতি আবু কালাম বক্স। যেখানে তাদের সাংসদের জীবনহানির আশঙ্কা করার পাশাপাশি দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়।

সবং ব্লকের যুব সভাপতি আবু কালাম বক্স বলেন, “আমাদের সাংসদ সবং-এর উন্নয়নের পাশাপাশি নানান অসামাজিক কাজকর্মের প্রতিবাদ বারবার করেছে। পাশাপাশি বিজেপির বিরুদ্ধে মুখ খুলেছে৷ চোলাই মদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছে। তাই যাদের তাতে সমস্যা হয়েছে তারাই এই ঘটনা ঘটিয়েছে।” এর পিছনে বড় কোন মাথা আছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। ঘটনার তদন্তে নেমে মঙ্গলবার ভোরে সবং থানার পুলিশ ভবেশ মাহাত নামে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে বলে জানা যায়। তবে কোনও নিদিষ্ট রাজনৈতিক দলের কেউ নয় বলেই জানা গিয়েছে।

ধৃতকে মঙ্গলবার মেদিনীপুর জেলা ও দায়রা আদালতে তোলা হয়।

এই বিষয়ে মানস ভুঁইয়ার বক্তব্য, “আমি রাজনীতিতে আজ নতুন আসিনি। আর ভয় দেখানো, ধমকানো, খুনের হুমকিও এই প্রথম পাচ্ছি এমন না। আমি এগুলোকে আগেও ভয় পায় নি, ভবিষ্যতেও পাব না।” এই বিষয়ে তৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সভাপতি অজিত মাইতি বলেন, “আইন আইনের পথে চলবে। এই ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না। দোষীকে পুলিশ ধরেছে। এর জন্য ধন্যবাদ। পুলিশ তদন্ত করে দেখুক আর কেউ জড়িত কিনা।”