অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস সহ কয়েকশো যাত্রী। কলকাতা থেকে শিলিগুড়ি যাওয়ার পথে বিমানটি দমদম এয়ারপোর্ট থেকে টেক অফ করার সময় হঠাত করে তুমুল শিলাবৃষ্টি শুরু হয়। বড়বড় শিল পড়তে থাকে। আর সেই সময় বড় একটি শিলের আঘাতে পাইলটের সামনের বিমানের কাচটি ভেঙে যায়। আর তা হতেই কার্যত বিপদজনক পরিস্থিতি তৈরি হয়ে যায়। কিন্তু পাইলট অন্তত দক্ষতার সঙ্গে বিমানটিকে এমার্জেন্সি ল্যান্ডিং করান কলকাতা বিমানবন্দরে।

জানা যাচ্ছে, সেই সময় বিমানের মধ্যে ছিলেন রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। এই ঘটনায় রীতিমত আতঙ্কিত মন্ত্রী। ঘটনার পর মন্ত্রী জানিয়েছেন, মনে হয় পুনর্জন্ম হলো।

জানা গিয়েছে, ঘটনার অনেক পর নতুন একটি বিমানে দমদম থেকে বাগডোগরায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে যাত্রীদের। ঘটনায় সমস্ত যাত্রীরা সুরক্ষিত রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। সুরক্ষিত রয়েছেন বিমানে থাকা শতাধিকের বেশি যাত্রীও। জানা গিয়েছে, ১৫০ জন যাত্রী নিয়ে এয়ার এশিয়ার বিমান কলকাতা থেকে বাগডোগরা যাচ্ছিল। ওই বিমানেই ছিলেন রাজ্যের ক্রীড়া ও যুব কল্যাণ মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস।

সন্ধ্যা বেলায় কলকাতা বিমানবন্দর থেকে বিমানটি কিছুক্ষণ টেক অফ করার কিছুক্ষণ পরেই মাঝ আকাশে ভয়ংকর শিলাবৃষ্টি শুরু হয়। এর পরেই শিলা বৃষ্টির জেরে বিমানের সামনের অংশের জানালার কাঁচে চির ধরে যায়। বিপদ বুঝতে পেরে পুনরায় কলকাতার এটিসি সঙ্গে যোগাযোগ করেন পাইলট। এটিসি ওই বিমানকে এমার্জেন্সি ল্যান্ডিং করার নির্দেশ দেয়। সেই মতো বিমানটি এমার্জেন্সি ল্যান্ডিং করে।

অন্যদিকে দক্ষিণবঙ্গেও বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষিপ্ত ভাবে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। মূলত মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, বর্ধমান, হুগলি, কলকাতা এবং দুই ২৪ পরগনাতেই বৃষ্টি হতে পারে। এর মধ্যে কোথাও কোথাও আবার বজ্রবিদ্যুত্-সহ বৃষ্টিও হতে পারে, জানিয়েছে আলিপুর। তবে এই পরিস্থিতি তৈরি হতে ৪৮ ঘন্টা সময় লাগবে বলেই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়াদফতর।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।