ফাইল ছবি

কলকাতা:  ব্যাপক ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল আলিপুর হাওয়া অফিস। কলকাতা, হাওড়া সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলাতে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। ব্যাপক ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে, দুই মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, বর্ধমান, হুগলী সহ একাধিক জেলাতে। বজ্রপাতের অ্যালার্ট জারি করা রয়েছে। সাধারণ মানুষকে এই বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

যদিও ইতিমধ্যে শহর এবং শহরতলির একাধিক জায়গাতে প্রবল ঝড়-বৃষ্টি শুরু হয়েছে। চলছে মুহুর বজ্র-বিদ্যুৎও।

প্রসঙ্গত, রবিবার দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়। হাওয়া অফিস এদিন সকালে জানায়, মুর্শিদাবাদ, নদিয়া বীরভূম, উত্তর ২৪ পরগনা পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস। কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

রবিবার মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, বীরভূম এই তিন জেলায় বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি এবং সোমবার মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, বীরভূম, উত্তর ২৪ পরগনায় ভারী বৃষ্টির সর্তকতা ৷ পাশাপাশি মঙ্গল ও বুধবার বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি হতে পারে পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে।

আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছেন, উত্তরপ্রদেশ থেকে দক্ষিণ ওডিশা পর্যন্ত বিস্তৃত একটি অক্ষরেখা ছত্তিশগড়ের উপর দিয়ে গিয়েছে। উত্তর-পূর্ব আরব সাগরে রয়েছে একটি নিম্নচাপ। এই সিস্টেম গুলির প্রভাবে দক্ষিণ ভারতের উপকূলীয় রাজ্যগুলি এবং পশ্চিম ও মধ্য ভারতের রাজ্যগুলিতেও বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে। আবার বাতাসে জলীয় বাষ্প বেশি থাকায় থাকবে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তিও। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর ৷

এদিকে ১২ জুলাই অর্থাৎ রবিবার ভারি থেকে অতিভারি ৭০ থেকে ১৯০ মিলিমিটার বৃষ্টি হবে দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ারের বেশ কিছু অংশে। উত্তরবঙ্গে প্রবল বৃষ্টিতে দার্জিলিং,কালিম্পং পার্বত্য ধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে উত্তরবঙ্গের নিচু এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। উত্তরবঙ্গের নদী গুলির জলস্তর অনেকটাই বাড়তে পারে। বেশ কিছু এলাকায় বন্যার পরিস্থিতির প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ