স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ প্রাক্তন মুখ্যসচিবের বর্তমান অফিসে সিবিআই হানা। বর্তমানে তিনি পর্যটন সচিব৷ আজ বৃহস্পতিবার তাঁর দফতরে হঠাৎ করেই হানা দেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷ প্রায় আড়াই ঘন্টা তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন সিবিআই আধিকারিকরা৷

সারদা কান্ড প্রকাশ্যে আসার পর তার তদন্তে নামে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷ তখন তারা জানতে পারে সরকার সারদার একটি টিভি চ্যানেলকে প্রচুর টাকা দিয়েছে৷ এমনকি সেটি চালানোর দায়িত্ব নিয়েছিল তৃণমূল সরকার৷ দিয়েছিলেন প্রায় ৬ কোটি টাকা৷ সেই সময় তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরের সচিব ছিলেন অত্রি ভট্টাচার্য৷ কোন কোন তহবিল থেকে ওই টাকা দেওয়া হয়েছিল, কেন টাকা দেওয়া হয়েছিল, সে সব উত্তর জানার জন্যই অত্রি ভট্টাচার্য জিজ্ঞাসাবাদ করে সিবিআই৷

আরও পড়ুন : লজ্জাজনক: প্রয়াত প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে গান স্যালুট দিতে গিয়ে যা ঘটল…

বৃহস্পতিবার দুপুর দুটো নাগাদ নিউ সেক্রেটারিয়েটের বিল্ডিংয়ে যায় সিবিআই৷ ওই বিল্ডিংয়ের রয়েছে প্রাক্তন স্বরাষ্ট্র সচিব অত্রি ভট্টাচার্যের অফিস৷ বর্তমানে তিনি পর্যটন সচিব৷ সেই অফিসেই এবার হানা দিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷ জানা গিয়েছে সিবিআই প্রায় আড়াই ঘন্টা ওই অফিসে ছিল৷ এর আগেও তাঁর অফিসে গিয়েছিলেন সিবিআইয়ের একটি দল৷ কিন্তু সেদিন তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারেনি সিবিআই৷

সূত্রের খবর, সিবিআই এদিন তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরের প্রাক্তন সচিব অত্রি ভট্টাচার্যের কাছে জানতে চেয়েছে, চিটফান্ড কান্ডে সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেনকে গ্রেফতারের পর, রাজ্য সরকার কেন সারদার ওই চ্যানেলকে কোটি কোটি টাকা দিয়েছিল৷ সেই সময় সচিব এর পদে থেকেও কেন আপনি বাধা দেননি৷

উল্লেখ্য, সারদা কর্তা গ্রেফতারের পর সারদার অধীনস্থ চ্যানেলগুলোর নিলাম প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল৷ সারদার সম্পত্তি বিক্রি করে আমানতকারীদের টাকা ফেরত দেওয়াক নির্দেশ দিয়েছিল শ্যামল সেন কমিশন৷ সেই অনুযায়ী, শুরু হয়েছিল সারদার চারটি চ্যানেলের নিলাম প্রক্রিয়া৷ চ্যানেলগুলো বিক্রি করে যে টাকা আয় হবে, তা দিয়েই সারদায় আমানতকারীদের সমস্ত টাকা ফিরিয়ে দিতে হবে। এমটাই বলেছিল শ্যামল সেন কমিশন৷ যদিও পরে দেখা যায়, মমতা সরকার সারদার একটি চ্যানেলকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য কোটি কোটি টাকা দেন৷ এই নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই সেই সময় বলা হয়েছিল, ওই টাকার একটা অংশ মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে দেওয়া হয়েছে৷