স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: সোমবার সন্ধ্যায় গুলি চলল মধ্যমগ্রামে। উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার মধ্যমগ্রাম পুরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কদমতলা বাজারে তৃণমূল কার্যালয়ে ঢুকে এলোপাথাড়ি গুলি ও বোম ছোড়ার অভিযোগ বিরোধীদের বিরুদ্ধে। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি৷

এই ঘটনায় তৃণমূল কংগ্রেসের স্থানীয় যুব নেতা বিনোদ সিং(রিঙ্কু ) আহত হয়েছেন৷ এছাড়া আহত হয়েছেন আরও এক তৃণমূল নেতা দীপক বোস। আহতদের বারাসাতের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশ বাহিনী পৌঁছেছে। ঘটনাস্থল থেকে মধ্যমগ্রাম থানার পুলিশ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছে৷

উত্তর চব্বিশ পরগনা তৃণমূল জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানান, এই ঘটনায় বিজেপি না সিপিএম কার হাত রয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি ওই জায়গায় সিসিটিভি ফুটেজেরও সাহায্য নেওয়া হচ্ছে। অপরদিকে, বারাকপুর লোকসভার কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং জানান, যেখানে ঘটনা ঘটেছে সেখানে আমাদের তেমন সংগঠন নেই, তৃণমূলের সিন্ডিকেটের দ্বন্ধেই ওই ঘটান ঘটেছে৷

স্থানীয় সূত্রে খবর, এদিন সন্ধ্যায় বাইকে করে তিনজন দুষ্কৃতী পার্টি অফিসে আসে। এবং এলোপাথারি বোমা ছুড়তে থাকে৷ স্থানীয় যুব নেতা বিনোদ সিং-কে লক্ষ্য করে গুলি চালায়৷ তার কান ঘেঁষে গুলি চলে যায়৷ তবে বোমার স্প্লিন্টারে তিনি গুরুতর জখম হয়েছেন৷ আহত হয়েছেন আরও দু’জন৷ এরপর দুষ্কৃতীরা বাইকে করেই পালিয়ে যায়৷ তাদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ৷