ওয়েলিংটন: হঠাৎ ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল কিউই দেশ। মঙ্গলবার সকালে হঠাতই কম্পন অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে যার তীব্রতা ৪.১। ঘুম ভেঙেই শুরু হয় হুড়োহুড়ি।

স্থানীয় সময় ৬ টা বেজে ৩৪ মিনিটে এই ঘটনা ঘটেছে। নিউজিল্যান্ডের ক্যান্টারবেরি অর্থাৎ অক্সফোর্ডের ৩০ কিলোমিটারের ৩০ কিলোমিটার দক্ষিণে বার্নহামের ক্রাইস্টচার্চে কম্পন অনুভূত হয়।

ভূমিকম্পের এক মিনিটের মধ্যেই কমপক্ষে ৯১৪ জন একই অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন বলেই জানা গিয়েছে। বেশিরভাগই জানিয়েছেন মৃদু কম্পন অনুভূত হয়েছে। অনেকেই বলেছেন যে ভূমিকম্পেই আমার ঘুম ভেঙেছে। অনেকে বলছেন এখনও বিছানায় আছি, বিছানা জোরে কাঁপছিল।

এদিকে রবিবার ৬.৪ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছে চিনের পশ্চিমাঞ্চলীয় জিনজিয়াং প্রদেশ। স্থানীয় সময় রবিবার রাত সাড়ে ৯টায় কাশগড় ও আরটাক্স শহরে ওই ভূমিকম্প অনুভূত হয়।

মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থার তথ্যানুসারে ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ছিল ভূগর্ভের ১৬ কিলোমিটার নিচে। অঞ্চলটি পাহাড়ি ও মরুভূমি অঞ্চল হওয়ায় হতাহতের সম্ভাবনা কম। উৎপত্তিস্থলের কাছাকাছি বসতি খুব একটা না থাকলেও যেসব আছে সেগুলো কাঁচা ইট দিয়ে নির্মিত। ফলে সেগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

চিনে প্রায়ই ভূমিকম্প হয়। বিশেষ করে দেশটির পশ্চিম ও দক্ষিণাঞ্চলের পাহাড়ি এলাকায়। এর আগে ২০০৩ সালে জিনজিয়াংপ্রদেশে ৬.৮ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে ২৬৮ জন নিহত হন। তখন ওই অঞ্চলে ব্যাপক ক্ষতি হয়। ২০০৮ সালের ১২ মার্চ সিচুয়ানপ্রদেশে ৮ মাত্রার প্রচণ্ড শক্তিশালী ভূমিকম্পে ৭০ হাজার মানুষ প্রাণ হারান।