কলকাতা: রাজ্যে করোনা আক্রান্ত আরও এক। এবার আক্রান্ত হলেন রাজ্যের এক চিকিৎসক। রবিবার তাঁর রিপোর্ট এসেছে। তিনি কমান্ড হাসপাতালের চিকিৎসক বলে জানা গিয়েছে।

এই নিয়ে রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৯। ইতিমধ্যেই তিনজন সুস্থ হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। তাঁদের আবারও পরীক্ষা করার পর নিশ্চিত হয়ে তবেই হাসপাতাল থেকে ছাড়া হবে। করোনা আক্রান্ত হয়ে রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে একজনের।

শনিবার মোট তিনজনের আক্রান্ত হওয়ার খবর আসে। এদের মধ্যে দু’জন এগরার বিয়েবাড়ি থেকে সংক্রামিত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এছাড়া, উত্তরবঙ্গে প্রথম একজন আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁর রিপোর্টও এসেছে শনিবার। তিনি সাম্প্রতিককালে বিদেশযাত্রা করেছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

তবে এই প্রথম রাজ্যে কোনও চিকিৎসক আক্রান্ত হলেন করোনায়। এই খবর অত্যন্ত উদ্বেগের। কারণ সম্প্রতি, তিনি যাঁদের চিকিৎসা করেছেন, তাঁদের মধ্যেও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। মনে করা হচ্ছে কোনও রোগীর থেকেই তাঁর শরীরে এই ভাইরাস ছড়িয়েছে।

আপাতত আলিপুর কমান্ড হাসপাতালেই আইসোলেশনে রাখা হয়েছে তাঁকে। তাঁর সংস্পর্শে কারা এসেছিলেন, তা চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। তাঁর আত্মীয়দেরও সতর্ক করা হয়েছে। তাঁর সঙ্গে কাজ করা অন্যান্য চিকিৎসকদের, রোগীদেরও সতর্ক করা হচ্ছে।

তিনি আলিপুর কমান্ড হাসপাতালের অ্যানাস্থেশিয়া বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বলে জানা গিয়েছে। গত ১৭ মার্চ দিল্লি থেকে কলকাতায় ফেরেন তিনি। এরপর ১৮ মার্চ থেকে হাসপাতালে কর্তব্যরত ছিলেন। কাজও করেছেন। সম্প্রতি, তিনি অসুস্থ হওয়ায় হাসপাতালেই তাঁর চিকিৎসা শুরু হয়। প্রথমটায় নিউমোনিয়া বলে মনে হলেও চিকিৎসকরা ঝুঁকি নিতে চাননি।

তাঁর লালারসের নমুনা পাঠানো হয় নাইসেডে। সেখান থেকেই রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে এদিন। তিনি যেহেতু সেনা হাসপাতালের চিকিৎসক, তাই সেনাবাহিনীর সঙ্গে যোগাযোগ রেখেই তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।