কলকাতা: মঙ্গলবার অফিস-টাইমের ব্যস্ত সময়ে শিয়ালদহ মেন লাইনে অবরোধের ফলে নাকাল হতে হল নিত্যযাত্রীদের। এ দিন সকাল সাড়ে দশ’টা নাগাদ দমদম জংশন এবং বেলঘরিয়া স্টেশনের মাঝে এই অবরোধ শুরু হয়। অবরোধকারীদের অভিযোগ, মঙ্গলবার সকাল ন’টা নাগাদ আপ বর্ধমান লোকালের ধাক্কায় মৃত্যু হয় স্থানীয় এক বৃদ্ধ এবং এক বালিকার।

ট্রেনের ধাক্কায় দাদু-নাতনির মৃত্যুর পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন স্থানীয় বাসিন্দারা। রেললাইনের ধারে সুরক্ষার অভাবের ফলেই এই মৃত্যু বলে দাবি করেন তাঁরা। এরপরেই দমদম জংশন এবং বেলঘরিয়ার মাঝে রেললাইনের উপর বসে পড়েন অবরোধকারীরা। এই অবরোধের জেরে সম্পূর্ণ স্তব্ধ হয়ে যায় শিয়ালদা মেন লাইন শাখা। একের পর এক ট্রেন থমকে যায়।

অফিসের ব্যস্ত সময়ে ট্রেন পরিষেবা ব্যাহত হওয়ায় জনস্রোত আছড়ে পড়ে বিভিন্ন স্টেশনে। ট্রেন না পেয়ে অনেকে ট্যাক্সি বা বাসে করে গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা দেন। ফলে রাস্তাতেও ভিড় উপচে পড়ে।

অন্যদিকে, অবরোধকারীদের এই অবরোধ তুলে নেওয়ার আর্জি জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি। ফলে, এক সময়ে অবরোধকারীদের সঙ্গে তীব্র বচসায় জড়ান নিত্যযাত্রীরা। অবরোধ তুলতে আসে রেলপুলিশও। কিন্তু, অবরোধকারীদের অনুরোধ-উপরোধেও কোনও কাজ না হওয়ায় তারা ফিরে যান।

আপাতত শিয়ালদা মেন শাখায় ট্রেন পরিষেবা সম্পূর্ণ বন্ধ। দমদম জংশনের আগে থমকে রয়েছে আপ কৃষ্ণনগর লোকাল। এছাড়াও মেন লাইনের বিভিন্ন স্টেশনে এই অবরোধের ফলে আটকে রয়েছে বিভিন্ন ষ্টেশন। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী অবরোধ তুলতে রেলপুলিশের তরফ থেকে এখনও তেমন কোনও তৎপরতা লক্ষ্য করা যায়নি।