অলুভা: অবশেষে যাত্রা শুরু করল শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন৷ শুক্রবার রাত ১০ টায় কেরালা থেকে ওডিশার উদ্যেশে ১,১৪০ জন শ্রমিকদের নিয়ে ছাড়ল প্রথম ননস্টপ শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন৷ আলুভা স্টেশন থেকে এদিন বিশেষ পুলিশি নিরাপত্তায় ট্রেনটি ভুবনেশ্বরের উদ্যেশে রওনা দেন৷ রবিবারই সকালেই ভুবনেশ্বরে পৌঁছে যাবে ট্রেনটি৷ আগামী দিনে আরও কয়েকটি ট্রেন কেরালার বিভিন্ন এলাকা থেকে দেশের অন্য প্রান্তে শ্রমিকদের নিয়ে রওনা দেওয়ার কথা রয়েছে৷

কেরলে প্রায় ৩.১ লক্ষ শ্রমিক মূলত ওডিশা, পশ্চিমবঙ্গ, অসম, বিহার এবং ঝাড়খন্ডে তাঁদের নিজ রাজ্যে ফিরে যেতে চাইছেন৷ সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী, যাত্রীদের এরনাকুলাম জেলার ক্যাম্পে রাখা হয়েছিল, তাদের রাষ্ট্রীয় বাসে আলুভা স্টেশনে নিয়ে আসা হয়েছিল। সেখান থেকে এদিন এই স্পেশাল ট্রেনটি ছাড়বে৷

ভারতীয় রেলওয়ে পরিচালিত ছ’টি বিশেষ ট্রেনের প্রথম রবিবারের মধ্যে তার গন্তব্যে পৌঁছে যাবে। অভিবাসী শ্রমিক, তীর্থযাত্রী, পর্যটক, শিক্ষার্থী এবং অন্যান্য ব্যক্তিদের তাঁদের ফিরিয়ে আনতে সরকারের উদ্যোগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক শ্রম দিবসে এ জাতীয় ছ’টি বিশেষ ট্রেন ছাড়ার ঘোষণা করে৷ আরও শ্রমিকদের নিয়ে বাকি বিশেষ ট্রেনগুলি লিঙ্গমপল্লী থেকে হাতিয়া, নাসিক থেকে লখনউ, নাসিক থেকে ভোপাল, জয়পুর থেকে পাটনা এবং কোটা থেকে হাতিয়ায় যাওয়ার কথা রয়েছে৷

করোনাভাইরাসের কারণে প্রথমবার ২৩ শে মার্চ প্রথমবার সারা দেশে লকডাউন ঘোষণা করা হয়৷ এর ফলে দেশের বিভিন্ন শহরে প্রায় ২৯ লক্ষেরও বেশি শ্রমিক আটকে পড়েছে৷ কিন্তু এই শ্রমিকরা বাড়ি ফেরার জন্য উদগ্রীব হয়ে পড়ায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক শুক্রবার শ্রমদিবসে তাঁদের নিজ নিজ রাজ্যে ফেরানোর কথা ঘোষণা করে৷

এর আগে এদিন অন্ধ্র প্রদেশের হায়দরাবাদ থেকে ঝাড়খন্ডের উদ্যেশে ১২০০ যাত্রীদের নিয়ে একটি ট্রেনকে বিকেল ৪টে ৫০ মিনিটে সবুজ সংকেত দেওয়া হয়েছিল৷ তবে এদিনই রেলপথ মন্ত্রক জানিয়েছে, অন্যান্য সমস্ত যাত্রীবাহী ট্রেন পরিষেবা বাতিলের মেয়াদ ১৭ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে৷

তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের জারি করা নির্দেশিকা অনুসারে, রাজ্য সরকারগুলির প্রয়োজন অনুসারে শ্রমিকদের নিয়ে বিশেষ ট্রেন বিভিন্ন স্থানে আটকে পড়া শ্রমিক, তীর্থযাত্রী, পর্যটক, শিক্ষার্থী এবং অন্যান্য ব্যক্তিদের বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করবে৷ রেলওয়ে বোর্ডের নির্বাহী পরিচালক রাজেশ দত্ত বাজপাই জানিয়েছেন, প্যাসেঞ্জার ট্রেন ১৭ মে পর্যন্ত বন্ধ থাকলেও মালবাহী ও পার্সেল ট্রেন চলাচল অব্যাহত থাকবে৷

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প