নয়াদিল্লিঃ প্রতিমুহূর্তে শক্তি বাড়াচ্ছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। ইতিমধ্যেই হাই অ্যালারট জারি করেছে হাওয়া অফিস। তাই সোমবার বিকেল ৪টে নাগাদ এ বিষয়ে বৈঠক করবেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক আগেই সতর্ক করেছে আমফান সোমবার সন্ধ্যার মধ্যেই সুপার সাইক্লোনে পরিণত হবে। পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উপকূলগুলিতে বুধবার নাগাদ তা আছড়ে পরবে বলেও জানানো হয়েছে।

ইন্ডিয়ান মিটিরিওলজিক্যাল ডিপার্টমেন্ট সোমবার সকালে জানিয়েছে, দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে ক্রমশ শক্তিশালী হয়েছে সাইক্লোন আমফান। পশ্চিমবঙ্গ এবং ওডিশার জন্য জারি হয়েছে বিশেষ সতর্কতা।

আমফান সংক্রান্ত পরিস্থিতিতে নজর দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক এবং জাতীয় বিপর্যয় ম্যানেজমেন্ট অথরিটির সঙ্গে সোমবার বিকেল ৪টের সময় বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে পশ্চিমবঙ্গ এবং ওডিশা সরকারকে একটি উপদেষ্টায় জানানো হয়েছে, আমফান বর্তমানে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরের মাঝখান এবং সংলগ্ন এলাকায় রয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় সাইক্লোন আমফান সুপার সাইক্লোনে পরিণত হবে বলেও জানানো হয়েছে।

বঙ্গোপসাগরের উপর অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। সোমবার ভোরেই এই খবর জানিয়েছেন মৌসম ভবন। এদিন ভোরে জানানো হয়েছে যে বঙ্গোপসাগরের মধ্যভাগে পৌঁছে গিয়েছে ভয়ঙ্কর এই ঘূর্ণিঝড়। মৌসম ভবনের আপডেট অনুযায়ী, সেইসময় ঝড়টি অবস্থান করছিল ওডিশঅর পারাদ্বীপ থেকে ৮৭০ কিলোমিটার দূরে। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চরম আকার ধারণ করবে বলেও জানানো হয়।

অন্যদিকে, পূর্ব মেদিনীপুরের দিঘা, মন্দারমণি, শংকরপুর-সহ সমুদ্র তীরবর্তী এলাকাগুলিতে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। সমুদ্র তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দাদের সতর্ক করা হচ্ছে। দুর্যোগ এলে বাসিন্দাদের সরানোর জায়গা তৈরি রাখা হয়েছে। প্রয়োজন হলেই মানুষজনকে ফ্লাড সেন্টারে এনে রাখা হবে।

উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, হাওড়া ও হুগলিতে এনডিআরএফ-র এই সাতটি দল পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে, ওডিশার পুরি, জগৎশিংপুর, কেন্দ্রপাড়া, বালাসোর, জপুর, ভদ্রক ও ময়ূরভঞ্জে ১০ টি দলকে পাঠানো হয়েছে।

বর্তমানে সাইক্লোন আমফান ওডিশার পারাদ্বীপ থেকে ৭৯০ কিমি দক্ষিণে, দিঘা থেকে ৯৪০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণ পশ্চিমে এবং বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকে ১০৬০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করেছে। দিঘা এবং বাংলাদেশের হাতিয়া দ্বীপপুঞ্জের মধ্যবর্তী জায়গায় ২০ মে বুধবার বিকেল নাগাদ আছড়ে পড়তে পারে বলেও জানানো হয়েছে। ঝড়ের গতিবেগ হতে পারে ঘন্টায় ১৮৫ কিমি।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প