করোনা থেকে সাবধান
ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: দেশে শেষ ২৪ ঘন্টায় আরও বাড়ল করোনা সংক্রমণ। বিগত ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত হলেন ৬৪ হাজার ৫৫৩ জন। এই সময়ের মধ্যে নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ১০০৭ জনের।

নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর জেরে দেশে মোট সংক্রমণ দাঁড়িয়েছে ২৪ লক্ষ ৬১ হাজার ১৯১-এ। এর মধ্যে অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ৬ লক্ষ ৬১ হাজার ৫৯৫ টি। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৭ লক্ষ ৫১ হাজারেরও বেশি মানুষ। এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৪৮ হাজার ৪০ জনের।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রক জানিয়েছে, ৩ কোটির বেশি এন৯৫ মাস্ক এবং ১.২৮-এর বেশি পিপিই কিট এবং ১০.৮৩ কোটি হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ট্যাবলেট এখনও অবধি রাজ্যগুলিকে বিনামূল্যে দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। মার্চ মাসের ১১ তারিখ থেকে এখনও অবধি এই পরিমাণ জিনিস পৌঁছে গিয়েছে রাজ্য প্রশাসনের হাতে।

একটি বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, মেক ইন ইন্ডিয়ার আওতায় মোট ২২,৫৩৩ ভেন্টিলেটরও পাঠানো হয়েছে রাজ্য সহ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল এবং কেন্দ্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলিকে।

অন্যদিকে ওষুধ নির্মাণকারী সংস্থা জাইডাস ক্যাডিলা এখনও পর্যন্ত সবথেকে সস্তার এই অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ ‘রেমডেজিভির’ আনল ভারতের বাজারে। বিশ্বের তৃতীয় সর্বাধিক সংক্রমণের দেশ ভারত। আর সেখানেই অভাব দেখা দিয়েছে এই ওষুধের। তাই এই ওষুধ সস্তায় আনা অত্যন্ত জরুরি ছিল।

পাশাপাশি কেন্দ্র জানিয়েছে, সংক্রমণ রুখতে ভারতে কোন ভ্যাকসিন ব্যবহার করা হবে তা ঠিক হলে করোনার সেই প্রতিষেধক সংগ্রহ থেকে শুরু করে সরবরাহের সব দায়িত্ব থাকবে কেন্দ্রীয় সরকারের হাতেই। কোনও রাজ্য সরকার আলাদা করে করোনার ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতে পারবে না। দেশের প্রতিটি নাগরিকের সুরক্ষার স্বার্থেই এই সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও