কলকাতা: বলিউডের পথেই হাঁটল টলিউড ৷ করোনা ভাইরাস আতঙ্কে প্রত্যাশামতই বন্ধ হয়ে গেল টালিগঞ্জের সমস্ত শুটিং৷ ৩০ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে টালিগঞ্জে শ্যুটিং-এর কাজকর্ম৷

মঙ্গলবার নন্দনে রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের উপস্থিতিতে বৈঠক করেন টলিউডের শিল্পী ও কলাকুশলীরা ৷ সম্্রতি করোনার যেভাবে গোটা দুনিয়া জুড়ে অতিমহামারীর আকার ধারণ করেছে তাই পরিস্থিতি বিচার করে আপাতত ৩০মার্চ পর্যন্ত সমস্ত শ্যুটিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস৷

এদিনের বৈঠকে রাজ চক্রবর্তী, অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়, পিয়া দাস প্রমুখ শিল্পীরা হাজির ছিলেন৷ তাঁরা জানান, সিনেমার শ্যুটিংয়ের পাশাপাশি টিভি সিরিয়ালের কাজ করা বন্ধ রাখা হচ্ছে ৷ যেহেতু মুখ্যমন্ত্রী মমতাবন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই জানিয়েছের রাজ্যে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করবেন ৩০ মার্চ, সেহেতু ওই দিন পর্যন্ত শুটিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ৷ সেই দিনের পর ফের টলিউডের শিল্পীরা বৈঠক করে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে ৷

প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যে করোনা আতঙ্কের জেরে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে বলিউডে শ্যুটিং বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল গত কালই৷ সেখানে ১৯ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সবরকম শ্যুটিং সংক্রান্ত কাজ বন্ধ রাখা হচ্ছে বলে জানান হয়। এরফলে সেখানে সিনেমা, সিরিয়ালএবং ওয়েব সিরিজের শ্যুটিং বন্ধ। ইন্ডিয়ান মোশন পিকচার্স প্রডিউশার্স অ্যাসোসিয়েশন পক্ষ থেকে একথা জানানো হয়৷ এছাড়া আরও দুটি সংগঠনও এই বিষয়ে একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা গিয়েছে ।

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।