মুম্বই: বৃহস্পতিবার বাজার খুলতেই চাঙ্গা শেয়ার বাজার। সকালেই প্রায় ৩০০ পয়েন্ট উঠে যাওয়ায় সেনসেক্স ৫০ হাজারের স্তর ছাড়ায়। ইতিমধ্যেই সেনসেক্স অবস্থান করছে ৫০,১২৭ পয়েন্টে। অন্যদিকে নিফটিও ১০০ পয়েন্টের ওপর উঠে। ১৪,৭৩৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

এদিন যেসব শেয়ারগুলির দাম বাড়ায় বিএসই শেয়ার সূচককে ঠেলে উঠিয়েছে তাদের মধ্যে রয়েছে-বাজাজ অটো, বাজাজ ফিনান্স, বাজাজ ফিনসার্ভ, এইচসিএল টেক, রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ এশিয়ান পেইন্টস। এই শেয়ারগুলির দাম বেড়েছে ১.৪৩ শতাংশ পর্যন্ত। অন্যদিকে এনএসই প্লাটফর্মে থাকা বিভিন্ন ক্ষেত্রে সূচক এদিন রয়েছে ঊর্ধ্বমুখী ইতিমধ্যেই ১ শতাংশ বেড়েছে।

বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, এদিন সকাল থেকে শেয়ারবাজার চাঙ্গা থাকার অন্যতম কারণ হল জো বাইডেন প্রশাসন ঘিরে প্রত্যাশা। অনেকে আশা করছেন, নতুন সরকার আসলে মার্কিন অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে যার সুবিধা পাবে এশিয় অঞ্চল। মার্কিন বাজার ঘুরে দাঁড়ালে তার ইতিবাচক প্রভাব পড়বে সেনসেক্স নিফটিতেও।

বুধবার ওয়াল স্ট্রিট উঠতে দেখা গিয়েছে নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্টের খবরে। অর্থনৈতিক স্টিমুলাস সম্পর্কে প্রতিশ্রুতি বাজার চাঙ্গা করতে সাহায্য করেছে।৪৬তম মার্কিন রাষ্ট্রপতি হিসেবে বাইডেন হওয়ায় প্রধান তিন সূচক ডাউজোনস , ন্যাসডাক,এস অ্যান্ড পি ৫০০) দিন শেষ করেছে সর্বকালীন রেকর্ড উচ্চতায় পৌঁছে।

অন্যদিকে এদেশের বাজার ওঠার পিছনে রয়েছে টাটা কনসালটেন্সি সার্ভিসেস, ইনফোসিস, উইপ্রো, এইচসিএল টেকনলোজিস এবং এইচডিএফসি ব্যাংকের মতো সংস্থার আয়ের ফলাফল খুব ভালো হওয়া। অর্থাৎ যা এদেশের দালাল স্ট্রিটকে প্রভাবিত করেছে।

এছাড়া আর কয়েক দিনের মধ্যেই পেশ হবে কেন্দ্রীয় বাজেট। ‌ পয়লা ফেব্রুয়ারি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন বাজেট পেশ করবেন।

করোনা সংকটকালে এই বাজেট নিয়ে মানুষের মধ্যে একটা কৌতুহল রয়েছে। নানা ধরনের প্রত্যাশা থাকছে আসন্ন বাজেটে ঘিরে। তারও কিছুটা ইতিবাচক প্রভাব এদিন বাজারে পড়েছে বলে কেউ কেউ মনে করছে। সব মিলিয়ে লগ্নিকারীদের মধ্যে একটা প্রত্যাশা বিরাজ করছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।