নয়াদিল্লি: বাড়িতে এমনভাবে থাকতে হবে যাতে প্রয়োজন ছাড়া বাইরে যেতে না হয়।

# করোনাবিধি পালন করার অনুরোধ করেন প্রধানমন্ত্রী

# লকডাউন থেকে দেশকে বাঁচাতে হবে। লকডাউনের কোনো প্রয়োজন নেই।শেষ সিদ্ধান্ত হিসাবে লকডাউনকে যেন বাছেন রাজ্যগুলো।

# সবাইকে একসঙ্গে কাজ করার অনুরোধ করেন। যুবাদের নিজের পাড়ায় ছোট ছোট কমিউনিটি তৈরী করে করোনা সতর্কতার প্রচার করার অনুরোধ করেন।

# পরিযায়ী শ্রমিকরা ভয় পাবেন না। যেখানেই আছেন সেখানে থাকার অনুরোধ করেন। সেখানেই ভ্যাকসিন পাবেন।

# উৎপাদনের অর্ধেক ভ্যাকসিন রাজ্য পাবে। ১ মে থেকে ১৮ বছরের বয়সের সবাই ভ্যাকসিন পাবে।

# বিশ্বের সবথেকে কম দামের ভ্যাকসিন ভারতে রয়েছে। ভারতে বিশ্বের সবথেকে বেশি টিকাকরণ হয়েছে।

# অক্সিজেনের অপ্রতুলতার খবর আসতেই সমস্ত ব্যবস্থা নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। ওষুধের উৎপাদন ক্ষমতাও বাড়ানো হয়েছে।

# করোনাযোদ্ধাদের কুর্নিশও জানান প্রধানমন্ত্রী

# কঠিন পরিস্থিতিতে ধৈয্য ধরে কাজ করতে হবে। তবেই আমরা জয়ী হব।

# করোনা বিরুদ্ধে লড়ছে দেশ। মহামারীতে যারা মারা গিয়েছেন তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানালেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশে উত্তরোত্তর বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রাত ৮.৪৫-এ দেশবাসীর উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে তা জানানো হয়।

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.