নয়াাদিল্লি: শুক্রবার জাতির উদ্যেশে ভাষণ দেওয়ার পর করোনা মোকাবিলায় প্রতিটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে টেলিকনফারেন্সে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ তারপর ভারতীয় ক্রিকেটের ‘বস’ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে টেলিকনফারেন্সে বৈঠক করতে বসেন মোদী৷ বৈঠকে যোগ দিয়েছেন টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন বিরাট কোহলি, ক্রিকেটঈশ্বর সচিন তেন্ডুলকর এবং দু’বারের বিশ্বকাপজয়ী ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি৷

করোনা মোকাবিলায় সারা দেশে লকডাউনের পর প্রথমবার দেশের কোনও স্পোর্টস বডির সঙ্গে বৈঠকে করছেন প্রধানমন্ত্রী৷ তবে কী নিয়ে বৈঠক তা নিয়ে জানানো না-হলেও সম্ভবত আইপিএল-এর ত্রয়োদশ সংস্করণ নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানা গিয়েছে৷ যা শুরু হওয়ার কথা ছিল ২৯ মার্চ৷ লকডাউনের জন্য যা স্থগিত হয়ে গিয়েছে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত৷ ফলে ২০২০ আইপিএল হওয়া নিয়ে দেখা দিয়েছে আশঙ্কা৷ সুতরাং আইপিএল নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারতীয় ক্রিকেটের এই চার মহীরুহকে আরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানাতে পারেন প্রধানমন্ত্রী৷ এদিন প্রত্যেকেই তাঁদের নিজেদের বাড়িতে থেকেই টেলিকনফারেন্সে মোদীর সঙ্গে বৈঠকে যোগ দেন৷

করোনা মোকাবিলায় আগেই এগিয়ে এসেছেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা৷ দেশবাসীকে সচেতন করার পাশাপাশি বাড়িয়ে দিয়েছেন সাহয্যের হাত৷ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের তরফে ইতিমধ্যেই করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী রিলিফ ফান্ডে ৫১ কোটি টাকা দান করা হয়েছে৷ এছাড়াও ব্যক্তিগতভাবে অনেক ক্রিকেটারই আর্থিক সাহায্য করেছেন৷

প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক তথা বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ব্যক্তিগতভাবে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর রিলিফ ফান্ডে ৫০ লক্ষ টাকা দেওয়ার পাশাপাশি সমাজের দরিদ্রদের অন্নের সংস্থান করেছেন৷ বুধবারই বেলুড মঠে গিয়ে ২ হাজার কিলো চাল মহারাজদের হাতে তুলে দিয়েছেন সৌরভ৷ অর্থ সাহায্য করেছেন ‘ক্রিকেটঈশ্বর’৷ প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীর রিলিফ ফান্ডে মোটা ৫০ লক্ষ টাকা দান করেছেন সচিন৷

অর্থ দান করেছেন ভারতীয় ক্রিকেটের ‘ফার্স্ট ম্যান’ ও ‘ফার্স্ট লেডি’৷ বিরাট কোহলি ও তাঁর স্ত্রী অনুষ্কা শর্মা প্রধানমন্ত্রী ও মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী রিলিফ ফান্ডে অর্থ দান করেছেন৷ তবে অর্থের পরিমাণ কত জা জানা যায়নি৷কারণ অর্থের পরিমাণ প্রকাশ্যে না-আনার অনুরোধ করেছেন বিরুষ্কা৷ এছাড়াও সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন ধোনি, সুরেশ রায়নারাও৷