ম্যানিলা: ফের ভূমিকম্প ফিলিপিন্সে৷ ৫.০ ম্যাগনিটিউডে কেঁপে উঠল পিন্টুইয়ান৷ কম্পনের গভীরতা ৪৮ কিলোমিটার বলে জানা গিয়েছে৷ তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কিছু জানা যায়নি৷ গত মাসেই একের পর এক ভূমিকম্পে অনেকের প্রাণ গিয়েছে, অনেকে গৃহহীন হয়েছে ফিলিপিন্সে৷ পরবর্তীকালে এই ধরণের পরিস্থিতির হাত থেকে কিছুটা হলেও যাতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমানো যায় সেই বিষয়েই জোর দিচ্ছে সরকার৷

এর কিছুদিন আগেই ভূমিকম্প হয় ইন্দোনেশিয়ায়৷ কম্পনের তীব্রতা ৬.০ ম্যাগনিটিউড বলে জানায় ইন্দোনেশিয়ান গভর্মেন্ট এজেন্সি৷ ইন্দোনেশিয়ার পাপুয়াতে কম্পনের পরই জাপানে ভূমিকম্প হয়৷ জানা যায়, ইন্দোনেশিয়ায় পাপুয়ার আবেপুরাতে একটি কম্পন হয় এবং অপর একটি কম্পন অনুভূত হয় জনপ্রিয় ট্যুরিস্ট স্পট সুলাওয়েলসিতে৷ এদিকে মেটিরিওলজিক্যাল এজেন্সির রিপোর্ট জানায়, এদিন ভোরেই জাপানে ৫.৫ ম্যাগনিটিউড তীব্রতায় ভূমিকম্প হয়৷

আবার, চিনেও ভূমিকম্প হয় গত শনিবার৷ চিনের সিচুয়ান প্রদেশের গঙজিয়ান এলাকা কেঁপে ওঠে৷ ৩১ জনের আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়৷ রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল ৫.৪৷ আহতদের দ্রুত হাসপাতালে ভরতির ব্যবস্থা করা হয়৷ তবে কেউই গুরুতর আহত হননি বলে খবর৷

প্রসঙ্গত, ১৭ই জুন প্রবল ভূমিকম্পের কারণে প্রাণ হারান ১১ জন। একই সঙ্গে জখম হন ১২২ জন। চিনের দক্ষিণ পশ্চিমে সিচুয়ান প্রদেশে ভয়াবহ ভূমিকম্প অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে সেই কম্পনের তীব্রতা ছিল ছয়। সরকারি হিসেব অনুসারে ওই ঘটনায় কমপক্ষে ১১ জনের প্রাণ যায়৷ একই সঙ্গে জখম হন ১২২ জন। বেসরকারি মতে দু’টি সংখ্যা অনেকটাই বেশি।