নয়াদিল্লি: ২৪ ঘন্টার বিচারে শেষ ৮ মাসের মধ্যে দেশে সর্বনিম্ন করোনা সংক্রমণ। শেষ ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হলেন মাত্র ১০ হাজার ৬৪ জন। এই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৩৭ জনের।

নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর জেরে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৫ লক্ষ ৮১ হাজার ৮৩৭ এ। এরমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছে ১ কোটি ২ লক্ষ ২৮ হাজার ৭৫৩ জন। দেশে এখন করোনায় অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৫২৮ জন।

দেশে করোনার জেরে মোট মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ৫২ হাজার ৫৫৬ জনের। শেষ ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ১৩৭ জনের।

আরও পড়ুন – সৌজন্যের উপহার, বাংলাদেশে কোভিশিল্ডের ২০ লক্ষ ডোজ পাঠাচ্ছে ভারত

অন্যদিকে গত শনিবার থেকে ভারতে শুরু হয়েছে ভ্যাক্সিন ড্রাইভ। এখনও পর্যন্ত ভারতে ৩.৮১ লক্ষ স্বাস্থ্যকর্মীকে ভ্যাক্সিন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৫৮০ জনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। সাতজনের শারীরিক অবস্থা এতই খারাপ যে তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দু’জনের মৃত্যুও হয়েছে। তবে এই মৃত্যুর সঙ্গে টিকাকরণের কোনও যোগ নেই বলে জানিয়েছে সরকার।

ভ্যাক্সিন নিয়ে ‘এইমস’-এর ডিরেক্টর রণদীপ গুলেরিয়া জানিয়েছেন যে, ভ্যাক্সিন নেওয়ার কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয়নি তাঁর শরীরে। সপমবার সকাল থেকে স্বাভাবিক কাজকর্ম করছেন তিনি। মিটিং সহ আর যা কিছু কাজ আছে, তার সবই করছেন, কিন্তু কোনও অসুবিধা হয়নি।

আরও পড়ুন – BREAKING: সাতসকালে বড়সড় দুর্ঘটনা, মৃত কমপক্ষে ১৩

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া চিন্তার কোনও কারণ নেই বলেই মনে করেন তিনি। তাঁর মতে, প্যারাসিটামলের মত ওষুধ খেলেও কোনও কোনও সময় অ্যালার্জিক রিঅ্যাকশন হতে পারে। ১০ শতাংশ মানুষের ক্ষেত্রে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায় বলে জানিয়েছেন তিনি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।