মেলবোর্ন: বিশ্বকাপে বিরাটদের হারের বদলা নিলেন হরমনপ্রীতরা! নিউজিল্যান্ডকে হারিয়েে টি-২০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পৌঁছে গেল ভারতীয় মহিলা দল৷ ম্যাচের সেরা ১৬ বছরের শেফালি ভার্মা৷

গত বছর পুরুষদের ওয়ান ডে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরেছিল কোহলি অ্যান্ড কোং৷ সেই সঙ্গে বিশ্বকাপের শেষ হয়েছিল ভারতের যাত্রা৷ কিন্তু বৃহস্পতিবার মেলবোর্নে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে মহিলাদের টি-২০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে জায়গা করে নিল ভারতীয় মহিলা দল৷ গ্রুপে প্রথম তিন ম্যাচ জিতে প্রথম দল হিসেবে শেষ চারে জায়গা করে নিলে হরমনপ্রীত-মন্ধনারা৷

প্রথম ম্যাচে চারবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া, তারপর বাংলাদেশ এবং নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে শেষ চারের জায়গা নিশ্চিত করে ভারত৷ মাত্র ১৩৩ রানের টার্গেট দিয়েও নিউজিল্যান্ডকে বেঁধে রাখতে সক্ষম ভারতীয় বোলাররা৷ ১৩৪ রান তাড়া করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১২৯ রানে থেমে যায় কিউয়ি ইনিংস৷

এদিন মেলবোর্নে টস জিতে ভারতকে প্রথমে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় নিউজিল্যান্ড৷ এই ম্যাচেও ব্যাট হাতে দুরন্ত শেফালি৷ কিউয়ি বোলারদের বিরুদ্ধে একাই দলকে টানেন রোহতকের এই বছর ষোলোর কিশোরী৷ ৩৪ বলে ৩টি ছক্কা ও ৪টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৪৬ রানের ইনিংস খেলেন শেফালি৷ এদিন ভারতীয় ইনিংসের শুরুটা ভালো হয়নি৷ ব্যক্তিগত ১১ রানে স্মৃতি মন্ধনা ডাগ-আউটে ফিরে যান৷ তারপর তানিয়া ভাটিয়া ২৩ রান করলেও মিডল-অর্ডারে ধস নামে৷ ৯৫ রানে পাঁচ উইকেট হারায় ভারত৷ কিন্তু সেখান থেকে ভারতীয় স্কোরকে ১৩৩ রানে পৌঁছতে বড় ভূমিকা নেন শেফালি ও রাধা যাদব৷ শেষ দিকে ৯ বলে একটি ছাক্ক-সহ ১৪ রান করেন রাধা৷ রান পাননি ক্যাপ্টেন হরমনপ্রীতও৷ মাত্র ১ রান করে ডাগ-আউটে ফেরেন তিনি৷

রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো না-হলেও মিডল-অর্ডারে গ্রিন, মার্টিন ও খেরের ব্যাটে ম্যাচে ফেরে নিউডিল্যান্ড৷ কিন্তু সেখান থেকেও ম্যাচ বের করে নেয় ভারত৷ শিখা পান্ডে ও রাজেশ্বরী গায়কোয়াডের দুরন্ত বোলিংয়ে ৪ রানে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ জিতে নেয় ভারতীয় দল৷ এই জয়ের ফলে গ্রুপে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই সেমিফাইনালে জাায়গা করে নিল ভারত৷ গ্রুপ-এ থেকে তিন ম্যাচ খেলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শেষ চারে পৌঁছ যায় হরমনপ্রীতরা৷ ভারতের গ্রুপের শেষ ম্যাচ শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে৷ তবে গ্রুপ-এ থেকে দ্বিতীয় দল হিসেবে সেমিফাইনালে যাওয়ার জন্য লড়াই হবে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে৷ লিগের নিউজিল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার এই ম্যাচ কার্যত কোয়ার্টার ফাইনাল৷