ইটানগর: ফের ভূমিকম্প কাঁপল মাটি। মাঝরাতে কেঁপে উঠল উত্তর-পূর্ব ভারতের এক রাজ্যের কাছাকাছি অঞ্চল। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৪.৮।

ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল সেন্টার ফর সিসমোলজি জানাচ্ছে, মঙ্গলবার রাত ১১ টা ৪৪ মিনিটে ভূমিকম্প আঘাত হানে অরুণাচলপ্রদেশের পাঙ্গিন এলাকার কাছাকাছি এলাকায়। ওই সংস্থা জানাচ্ছে, পাঙ্গিন থেকে ২৬১ কিমি উত্তরে মাটি থেকে ৩০ কিমি গভীরে ছিল এই ভূমিকম্পের উৎসস্থল।

উল্লেখ্য, আগের সপ্তাহেই ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে উত্তর পূর্ব ভারত। ভূমিকম্প আঘাত হানে মণিপুরে। রিখটার স্কেলে ভূ-কম্পনের মাত্রা ছিল ৩.৫ ।

শনিবার কম্পন হয় ওডিশায়। কম্পনের মাত্রা ছিল ৩.৮। সকাল ৭ টা ১০ মিনিটে এই কম্পন অনুভূত হয়। ভুবনেশ্বরের আবহাওয়া দফতরের তরফে এই খবর জানানো হয়।

এর আগের মাসে ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছে পাহাড় লাগোয়া মিজোরাম। তার কিছুদিন আগে, দেশের উত্তর-পূর্বের রাজ্য একাধিকবার কেঁপে উঠেছে। অসম সহ মিজোরাম কেঁপেছে একাধিকবার। জুনের ১৮ তারিখ থেকে ২১ তারিখের মধ্যে কম্পন বোঝা গিয়েছে প্রায় পাঁচবারের বেশি। বিষয়টিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ।

এদিকে, দিল্লিতে দু’মাসে অন্তত ১২ বার ভূমিকম্প হয়েছে, যা অত্যন্ত উদ্বেগের। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ কোনও বড়সড় ভূমিকম্পের ইঙ্গিত। উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে ভূমিকম্পের ফলে জানা গিয়েছে, একের পর এক বাড়িতে বড় ফাটলের পাশাপাশি রাস্তাতেও বড়বড় ফাটল হয়েছে।

দিল্লির মত জনবহুল জায়গায় এই ধরনের ভূমিকম্প মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে বলে জানিয়েছেন ওই অধ্যাপক। তিনি বলেন, ভূমিকম্প রুখতে যেসব নিয়ম মানতে হয়, তা না মেনেই একের পর এক ইমারত গড়ে তোলা হচ্ছে, আর তার ফলেই বাড়ছে ভয়।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও