বারুইপুর: বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শিশু-সহ ৩ জনের মৃত্যু৷ ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার উস্তিতে৷ ঘটনাস্থলে উস্তি থানার পুলিশ৷

রবিবার ছুটির দিনে বাড়ির ছাদে পিকনিকের আয়োজন ছিল৷ ঐ বাড়ির ছাদের পাশ দিয়ে গিয়েছে বিদুৎতের তার৷ পিকনিক চলাকালিন ওই তার ধরেন একজন৷ তাকে বাঁচাতে গিয়ে আরও ২জন বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন৷

তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়৷ সেখানে চিকিৎসরা তাদেরকে মৃত বলে ঘোষণা করেন৷ মৃতদের মধ্যে একজন শিশু রয়েছে৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছেন উস্তি থানার পুলিশ৷

স্থানীয় সূত্রে খবর, দক্ষিণ ২৪ পরগণা মগরাহাটের বাসিন্দা গফ্ফার মোল্লা তার আত্মীয় বাড়িতে পিকনিক করতে গিয়েছিলেন৷ সঙ্গে ছিলেন তার ভাই মফিজুল মোল্লা (৩৪) এবং তার ছোট্ট ছেলে রিজুয়ান মোল্লা (৬) ৷ এই তিনজন বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হলে, তাদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ সেখান থেকে তাদেরকে ডায়মন্ড হারবার হাসপাতালে পাঠানো হয়৷ সেখানেই তিনজনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা৷
শীতের দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে উস্তি এলাকার বানেশ্বরপুরে৷ একই পরিবারের তিনজনের মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে৷ অন্যদিকে ঘটনার তদন্তে নেমেছে উস্তি থানার পুলিশ৷

কিছুদিন আগে পিকনিক সেরে ট্রাক্টরে চেপে বাড়ি ফেরার পথে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছিল তিন জনের। মৃতদের নাম মিলন সরকার, সুরজিৎ মিদ্দা ও গাজন মিদ্দা।মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছিল বাঁকুড়ার জয়পুরের বাসী চণ্ডিপুর এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রে খবর, জয়পুরের হেতিয়া এলাকার বেশ কয়েক জন যুবক ইংরাজী নববর্ষে দ্বারকেশ্বর নদীর বেলেখালি চরে ট্রাক্টরে চেপে পিকনিক করতে গিয়েছিলেন। সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরার পথে বাসি চণ্ডিপুরের কাছে ট্রাক্টরে থাকা সাউণ্ড বক্স হাইটেনশান বৈদ্যুতিক তারে লেগে যায়। এই ঘটনায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন ট্রাক্টরে বসে তারা প্রত্যেকেই। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ঐ তিন জনের। গুরুতর আহত আরো দু’জন।