মুম্বই: দুসংবাদ যেন কোনও ভাবেই পিছু ছাড়ছে না বলিউডের। ফের একবার শোক সংবাদ মুম্বই সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির জন্য। প্রয়াত জনপ্রিয় কোরিওগ্রাফার সরোজ খান।

মধ্যরাত ২ টো ৩০ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। জুন মাসের ২০ তারিখ শ্বাসকষ্টের জন্য তাঁকে মুম্বইয়ের বান্দ্রাতে গুরু নানক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তাঁর।

কিংবদন্তি কোরিওগ্রাফার সরোজ খানের মারাত্মক ডায়াবেটিস ছিল। তাঁর করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা করা হলেও সেই রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। তাঁর পরিবারে রয়েছেন, স্বামী বি সোহানলাল, ছেলে হামিদ খান এবং কন্যা হিনা খান এবং সুকিনা খান।

খ্যাতনামা এই কোরিওগ্রাফার তিনবার জাতীয় পুরষ্কার পেয়েছেন। বলিউডে বেশ কিছু অবিস্মরণীয় গানের কোরিওগ্রাফ করেছিলেন তিনি। চার দশকেরও বেশি সময়ের নিজের ক্যারিয়ারে ২০০০ এরও বেশি গানে কোরিওগ্রাফ করেছেন তিনি।

মাত্র ৩ বছর বয়সে ব্যাকগ্রাউন্ডে নৃত্যশিল্পী হিসাবে কাজ শুরু করেছিলেন সরোজ খান। ১৯৭৪ সালে গীতা মেরা নাম সিনেমায় কোরিওগ্রাফার হিসেবে আত্মপ্রকাশ ঘটান তিনি। ১৯৮৭ এর হাওয়া হাওয়াই থেকে শুরু করে দেবদাসের ডোলা রে ডোলা (২০০২) একাধিক গানে তাঁর অবদানে চিরকাল তাঁকে মনে রাখবে শিল্প জগত।

 

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ