জম্মু কাশ্মীর: জম্মু কাশ্মীরে এনকাউন্টার চলাকালীন শহিদ হলেন কর্নেল, মেজর সহ ৫ ভারতীয় সেনা। জম্মু কাশ্মীরের হাণ্ডিয়ারাতে চলছিল এই এনকাউন্টার। রবিবার ভারতীয় সেনার তরফ থেকে এই খবর জানানো হয়েছে ।

পাশাপাশি জানানো হয়েছে, এনকাউন্টার চলাকালীন খতম করা হয়েছে ২ জঙ্গিকেও। কাশ্মীরের উত্তর দিকে রাজধানী শ্রীনগর থেকে ৭০ কিমি দূরে হান্ডিওয়ারা এলাকার চাঞ্জমুল্লা গ্রামে এই লড়াই চলে।

সেনার তরফে জানানো হয়েছে, গ্রামের বেশ কয়েকজন বাসিন্দাকে বন্দি করে রেখেছিল জঙ্গিরা। তাঁদের উদ্ধার করতে গিয়েই শুরু হয় এনকাউন্টার। সেনা ও জম্মু কাশ্মীর পুলিশের  সঙ্গে চলে গুলির লড়াই। ২১ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের মেজর সহ ৪ জওয়ান ও জম্মু কাশ্মীর পুলিশের এক জওয়ান এই এনকাউন্টারে শহিদ হয়েছেন।

যখন বন্দিদের উদ্ধার করতে জওয়ানেরা বাড়ির ভিতরে ঢুকছিল, তখনই সেনার ওপর হামলা করে জঙ্গিরা। সেনা আধিকারিকেরা জানিয়েছেন, জঙ্গিদের খতম করার পর বন্দিদের উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে ভারতীয় সেনা।

উল্লেখ্য, লকডাউনে কাশ্মীরে একাধিকবার জঙ্গিদের মুখোমুখি হতে হচ্ছে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে। লকডাউনে, করোনায় সারা দেশ যখন অনিশ্চিতের দিকে এগোচ্ছে, তখনও তাঁদের কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে জঙ্গি সংগঠনগুলি।

শনিবারও জম্মু কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলার দাঙ্গেপোড়া এলাকায় জঙ্গিদের সঙ্গে বাহিনীর গুলির লড়াই চলে। এর আগে সোপিয়ানে সারা রাত ধরে এনকাউন্টার চালায় ভারতীয় সেনা। সেখানে নিকেশ করা হয় দুই জঙ্গিকে। সোপিয়ানের মেলহুরা এলাকায় ৩জন জঙ্গির লুকিয়ে থাকার খবর পেয়ে তল্লাশি শুরু করে সেনা।

আচমকাই গুলি ছুঁড়তে থাকে জঙ্গিরা। পালটা জবাব দেয় সেনাও। রাতভোর লড়াইয়ের পর দুই জঙ্গির দেহ উদ্ধার করা হয়। সেনার ৫৫ নম্বর রাষ্ট্রীয় রাইফেলস, সোপিয়ান পুলিশ ও সিআরপিএফের যৌথ উদ্যোগে চলে এই অভিযান।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প