নয়াদিল্লি: শেষ হল অযোধ্যা মামলায় শুনানি। টানা চল্লিশ দিনের শুনানির পরেও কোন দিক পেল না এই বিতর্কিত এই মামলা। পাঁচ বিচারপতির সানগবিধানিক বেঞ্চে এই শুনান সম্পন্ন হয়। তবে রায়দান করা হল না এই মামলায়।

দীর্ঘদিন ধরে এই মামলার শুনানি চলায় এদিনই মামলার চূড়ান্ত শুনানি শেষ করা হবে বলে জানান সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। শোনা যাচ্ছে, আগামী ১৭ নভেম্বর এই মামলার চূড়ান্ত রায় জানাতে পারে সুপ্রিম কোর্ট।

বুধবার শুনানি চলাকালীন হিন্দু পার্টির আনা একটি কাগজ ছিঁড়ে নতুন তথ্যপ্রমাণ লোপাট করার অভিযোগ আসে মুসলিম পার্টি কাউন্সিলের বিরুদ্ধে। চূড়ান্ত শুনানির দিনে যা নিয়ে উত্তেজনা চরমে পৌঁছোয়।

হিন্দু মহাসভার আইনজীবী বিকাশ সিং একটি বই বিচারকক্ষে প্রকাশ্যে নিয়ে আসার জন্য আদালতের থেকে বিশেষভাবে অনুমতি নেয়। যা অযোধ্যা মামলায় একেবারেই একটি নতুন প্রমাণ। মুসলিম কাউন্সিল পক্ষের আইনজীবী রাজীব ধবন যার বিরোধিতা করে।

বাবরি মসজিদ মামলায় হিন্দু মহাসভার আইনজীবী অনুরোধ জানান যে তিনি প্রাক্তন আইপিএস অফিসার কিশোর কুণালের লেখার একটি বই এই প্রেক্ষিতে নতুন তথ্য হিসেবে পেশ করতে চান। এরপরই মুসলিম কাউন্সিল পক্ষের আইনজীবী রাজীব ধবন আদালতে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করেন। তাঁর বক্তব্য, “এটা সম্পূর্ণ একটি নতুন বই যা উনি এখন রেকর্ড হিসেবে দেখাতে চাইছেন।” এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ বিচারপতিরা তাঁকে আদালত কক্ষ থেকে বেড়িয়ে যেতেও অনুরোধ করেন। আদালতে তৈরি হয় অনভিপ্রেত পরিস্থিতি। শীর্ষ আদালত এ বিষয়ে তিন দিনের মধ্যে দুই তরফের সব দায়িত্বপ্রাপ্তকে সব প্রয়োজনীয় জিনিস জমা করতে বলা হয়েছে।