শ্রীনগ্রর: ফের সাতসকালে গুলির শব্দ ভূ স্বর্গে। জঙ্গিদের সঙ্গে এনকাউন্টার শুরু ভারতীয় বাহিনীর। সোপিয়ানের রেবান এলাকায় এই এনকাউন্টার শুরুর খবর পাওয়া গিয়েছে।

আপাতত জানা যাচ্ছে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে এই এনকাউন্টার এখনও চলছে। অনুমান করা হচ্ছে কমপক্ষে ২ থেকে ৩ জন জঙ্গি ওই এলাকায় আত্মগোপন করে রয়েছে।

জানা যাচ্ছে, সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের ১৭৮ ব্যাটেলিয়ন, রাষ্ট্রীয় রাইফেলস ও স্পেশাল অপারেশন টিম একজোগে তল্লাশি অভিযান শুরু করেছিল। এই সময়ই জঙ্গি ও বাহিনীর মধ্যে এনকাউন্টার শুরু হয়ে যায়।

শুক্রবারেও কাশ্মীরের রাজৌরির কালাকোটে বাহিনীর সঙ্গে এনকাউন্টারে নিকেশ ১ জঙ্গি। খবর মোতাবেক, বৃহস্পতিবার রাতে এই এনকাউন্টারে ওই জঙ্গিকে নিকেশ করা হয়।

গত সপ্তাহেই সেনার হাতে খতম হয় তিন জইশ জঙ্গি। কাশ্মীরে বন্ধ করে দেওয়া হয় ইন্টারনেট পরিষেবা। বুধবার সকালে জঙ্গি ও ভারতীয় বাহিনীর মধ্যে লড়াই শুরু হয়। এই সংঘর্ষে ভারতীয় সেনার হাতে নিকেশ হয় তিন জইশ ই মহম্মদ জঙ্গি। কঙ্গন এলাকায় জঙ্গিদের আত্মগোপন করে থাকার খবর পেয়েই তল্লাশি চালাতে শুরু করে সেনা।

এর আগে পয়লা জুন সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে আসার চেষ্টা বানচাল করে সেনা। তিন জঙ্গি সীমান্ত পেরিয়ে অনুপ্রবেশ ঘটানোর চেষ্টা করছিল বলে সেনা সূত্রে খবর। জম্মু কাশ্মীরের নৌসেরা সেক্টরের রাজৌরি জেলার ঘটনা। তিন জঙ্গিকেই নিকেশ করে ভারতীয় জওয়ানরা।

সেনার এক শীর্ষ আধিকারিক জানান পুঞ্চ ও রাজৌরি জুড়ে তল্লাশির মাত্রা বাড়ানো হয়েছে। বিভিন্ন গ্রামে চলছে টহলদারি। অন্যদিকে পৃথক ভাবে তল্লাশি চালাচ্ছে বিএসএফ। পুলিশের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে জম্মু কাশ্মীরের সাম্বা সেক্টরের হীরানগর এলাকায় তল্লাশি চালানো হয়।

 

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প