ব্রাজিলিয়া: ব্রাজিলে বাঁধ ভেঙে যে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে, তাতে ক্রমশই বাড়ছে মৃত্যু সংখ্যা৷ স্থানীয় কর্তৃপক্ষের রিপোর্ট অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৫৮, যার মধ্যে ১৯ জনকে শনাক্ত করা গিয়েছে৷ নিখোঁজের সংখ্যা ৩০৫৷

উল্লেখ্য, শুক্রবার ব্রাজিলের একটি বাঁধ ধসে প্রায় দুশো মানুষ নিখোঁজ। ভোররাতে মিনাস জেরাইস প্রদেশের ব্রুমাদিনহো শহরের ওই বাঁধটি ধসে পড়ে। ধসের পর ছড়িয়ে পড়া কাদার নদীতে আশেপাশের বহু এলাকার মানুষ আটকে পড়েছে বলে জানা যায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছয় স্থানীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর। যাচ্ছেন দেশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরাও। অন্যদিকে ঘটনায় কয়েক জনের মৃত্যুর খবর পাওয়ার কথা স্বীকার করলেও কতজন নিহত হয়েছে তা নিশ্চিত করেনি সেখানকার প্রশাসন।

ওই বাঁধটির মালিক ব্রাজিলের অন্যতম কোম্পানি ভ্যালে। মালিকানাতেও ভ্যালের অংশীদারিত্ব ছিল। বহুজাতিক খনি কোম্পানি বিএইচপি বিলটনের সঙ্গে ভ্যালের যৌথ মালিকানাধীন ওই বাঁধ ধসে স্থানীয় শত শত বাড়িঘর ধ্বংস হয়। আল জাজিরার খবরে বলা হয়, ২০১৫ সালের সেই ঘটনার তুলনায় শুক্রবারের বাঁধ ধসের ঘটনা আরও বিশাল। প্রাণের অস্তিত্ব পাওয়া গেলেও যেতে পারে মনে করা হচ্ছে, আর তাই তল্লাশিও চলছে জোরকদমে৷ তবে মৃতের সংখ্যা ৫৮ থেকে বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

তবে ঠিক কি কারমে এই বাঁধ ভেঙে পড়ল তা এখনও স্পষ্ট নয়৷ জার্মান ফার্ম এর কারণ অনুসন্ধান করছে বলে জানা গিয়েছে৷