ফাইল ছবি

সুভাষ বৈদ্য, কলকাতা: কোনও দেশের ভৌগোলিক অবস্থান সম্পর্কে জানতে অবশ্যই মানচিত্র প্রয়োজন৷ দৃষ্টিহীন ছাত্র-ছাত্রীদের পক্ষে সেই মানচিত্রই যেন দুর্বোধ্য একটি বিষয়৷ আর এ কথা মাথায় রেখেই ব্রেইল লিপিতে এই প্রথম বাংলা মানচিত্র প্রকাশ করতে চলেছে ভারত সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের ন্যাশনাল অ্যাটলাস অ্যান্ড থিমেটিক ম্যাপিং অর্গানাইজেশন (ন্যাটমো)৷ আগামিকাল বিধাননগর, সেক্টর-৫ এ রাষ্ট্রীয় অ্যাটলাস ভবনে একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এটি প্রকাশ করা হবে৷ এই বিষয়ের উপর একদিনের কর্মশালারও আয়োজন করা হয়েছে৷ যেখানে সামিল হবেন রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলের ব্রেইল শিক্ষক ও প্রশিক্ষক৷

মানচিত্র সম্পর্কে সংস্থার অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর (OL)অঞ্জলি শর্মা জানালেন, বাংলা ভাষায় পাঠরত দৃষ্টিহীন ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ব্রেইল লিপিতে এই মানচিত্র তৈরি করা হয়েছে৷ বিভিন্ন ধরনের রৈখিক এবং বিন্দু প্রতীক ব্যবহার করে এবং সেগুলিকে বিশেষ ধরনের কাগজের উপর খোদাই করে তৈরি হয়েছে ট্যাকটাইল মানচিত্র৷ যা ব্যবহার করে দৃষ্টিহীন ছাত্র-ছাত্রীরা সহজেই একটি বিশেষ স্থানের বিভিন্ন ভৌগোলিক বৈশিষ্ট্য সম্বন্ধে অবগত হতে পারবে। ন্যাটমো দীর্ঘদিন গবেষণা করে সম্পূর্ণ আধুনিক পদ্ধতিতে ট্যাকটাইল মানচিত্র তৈরির প্রক্রিয়া উদ্ভাবন করেছে৷ তাঁর আরও দাবি, ভূগোল বিষয়টিকে মানচিত্র মাধ্যমে দেশের দৃষ্টিহীন ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে সহজ উপায়ে তুলে ধরার প্রয়াসে তেমন ভাবে কোন সংগঠন এর আগে কখনও উদ্যোগী হয়নি৷

বাংলা ব্রেইল লিপিতে রচিত এই জাতীয় মানচিত্রাবলীতে ভারতের বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক কুড়িটি মানচিত্র (রাজনৈতিক, ভূ-প্রকৃতি, নদ-নদী, মৃত্তিকা, জলবায়ু, খাদ্যশস্য ইত্যাদি) সংক্ষিপ্ত বিবরণ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে ৷ স্পর্শানুভূতিভিত্তিক এই মানচিত্র নির্মাণে ন্যাটমো বিশেষ প্রযুক্তির সাহায্য গ্রহণ করেছে যা একান্তই স্বদেশীয় ও পরিবেশ-বান্ধব এবং সম্পূর্ণ নিরাপদ৷ মানচিত্র অনুধাবন-কালে ব্যবহারকারীর স্পর্শকাতর আঙ্গুলে যাতে আঘাত না লাগে সেই ক্ষেত্রেও ন্যাটমো বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে৷ এর আগে ভারতে দৃষ্টিহীন জনগণের জন্য দেশের ভৌগোলিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক বিষয়গুলিকে মানচিত্রের মাধ্যমে পঠন-পাঠনের প্রকৃত কোনও ব্যবস্থা ছিল না ৷

এই মানচিত্রাবলী সংকলনে সক্রিয় সহায়তা করেছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন ব্লাইন্ড বয়েস আকাদেমি,কলকাতা ব্লাইন্ড স্কুল এবং সোসাইটি ফর ভিস্যুয়ালী হ্যান্ডিক্যাপড কলকাতা৷

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।