নয়াদিল্লি: ভারতের নৌসেনার মুকুটে আরও একটি পালক যুক্ত হল। ব্রাহ্মস সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করেছে ভারত। ২৯০ কিলোমিটার রেঞ্জের এই মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণের খবর ভারতীয় নৌসেনার তরফ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বৃহস্পতিবার ঘোষণা করা হয়।

বৃহস্পতিবার আরবসাগরের বুকে মিডিয়াম রেঞ্জের সুপার সনিক ক্রুজ মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ হয়। এই মিসাইল স্থলভাগ থেকে কিংবা জাহাজের পাশাপাশি উড়োজাহাজ থেকেও শত্রুপক্ষকে ধ্বংস করার জন্য ছোঁড়া যাবে। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসেই এই মিসাইলেই প্রপালশন সিস্টেম,এয়ারফ্রেম, পাওয়ার সাপ্লাই-সহ নানা অত্যাধুনিক প্রযুক্তি যোগ করা হয়েছিল। সে বার এই মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ হয়েছিল ওড়িশার চাঁদিপুরে।
উড়োজাহাজ থেকে শত্রুপক্ষকে নিকেশ করে দিতে সক্ষম এই ২.৫ টনের ব্রাহ্মস সুপার সনিক এয়ার টু সারফেস মিসাইলের আঘাত হানার সীমা ৩০০ কিলোমিটার পর্যন্ত।

ভারতীয় বায়ুসেনা ২০১৭ এর ২২ নভেম্বর বিশ্বে প্রথম সেনাবাহিনী হিসাবে ২.৮ মার্ক সার্ফেস অ্যাটাক মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করেছিল। এর মাঝেই ভারতের বায়ুসেনার শক্তি আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্র।
আগামী এক দশকে ১১৪ টি যুদ্ধবিমানের জন্য চুক্তি স্বাক্ষর করবে ভারত। পাশাপাশি দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ৮৩ টি হালকা কমব্যাট বিমান মার্ক ওয়ান এ এবং মার্ক টু বাহিনীর সঙ্গে যুক্ত হবে বলে জানা গিয়েছে।
এর মধ্যে ৮৩ টি বিমানের ব্যাপারে চুক্তি করা হতে পারে হিন্দুস্তান অ্যারোনটিকস লিমিটেডের সঙ্গে। এইগুলি আইএএফ প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, ভারতে তৈরি ও নকশা করা যুদ্ধবিমানগুলি মিগ-২১ এর বদলে প্রতিস্থাপন করা সম্ভব হবে। এই যুদ্ধবিমানকে পরবর্তীতে আরও উন্নত করা যেতে পারে। এর মধ্যে যুক্ত থাকছে সক্রিয় বৈদ্যুতিন স্ক্যানার র‍্যাডার, ক্ষেপণাস্ত্র, এবং নানান ধরনের বোমা।

আর কিছুদিনের মধ্যেই ভারতের বায়ু সেনায় যোগ দিতে চলেছে বেশ কিছু রাফাল যুদ্ধবিমানও। ফ্রান্স থেকে মোট ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান কিনছে ভারত। খরচ হচ্ছে ৫৯,০০০ কোটি টাকা। রাফালের প্রথম ব্যাচটি ভারতে আসবে আগামী বছর এপ্রিল-মে মাসে। ২০২২ সালে ৩৬টি যুদ্ধবিমানই ভারতের হাতে চলে আসবে। এর মধ্যে ২টি স্কোয়াড্রনকে রাখা হবে আম্বালা ও হাসিমারায়। ফলে, স্থল-বায়ু-জল প্রতিটি জায়গায় অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।